খাবার খেয়েই মাসে আয় কোটি টাকা

বেথানি গাসকিন  © সংগৃহীত

বেঁচে থাকার জন্য খাবার অপরিহার্য আর খাবার জন্যই পৃথিবীতে এতকিছু। মানুষের মৌলিক চাহিদার প্রথম উপাদানটি খাদ্য। কিন্তু খাবারের পেছনে প্রতিদিন, প্রতিমাসে খরচ করতে হয় হাজারো টাকা। তবে কোরিয়ার একজন নারী খাবার খেয়েই মাসে কোটি টাকা আয় করছেন।

ভাবতে অবাক লাগলেও বিষয়টি সত্যি। বেথানি গাসকিন নামের এই নারী ইউটিউবে তার খাবার খাওয়ার ভিডিও ধারণ করে প্রকাশ করেন। তখন তার ভিডিওগুলোতে লাখ লাখ ভিউ হতে থাকে। যা থেকে তিনি মাসে ১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেন। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় কোটি টাকার সমান।

বেথানি গাসকিনের ইউটিউব চ্যানেলটির নাম হচ্ছে ‘বিলাভলাইফ’। বর্তমানে তার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ২০ লাখ। তার চ্যানেলের মূল কনটেন্টই হচ্ছে খাবার খাওয়ার ভিডিও। এজন্য তিনি আলাদা একটি জনরার নাম দিয়েছেন। যাকে তিনি বলছেন ‘মিওব্যাঙ’।

এখানে দুটি কোরিয়ান ভাষার শব্দ মিলে একটি শব্দ সৃষ্টি করা হয়েছে। শব্দটি ভাঙলে দেখা যায় মেওকিনান (খাওয়া) এবং ব্যাঙসং (ব্রডকাস্ট)। অতএব ‘মিওব্যাঙ’ এর অর্থ দাঁড়ায় ‘খাওয়ার ব্রডকাস্ট’ বা ‘ইটকাস্ট’।

ভিডিওগুলোতে দেখা যায় তিনি বিপুল পরিমাণে ভারি খাবার খাচ্ছেন এমন ভিডিও প্রকাশ করেন। এরমধ্যে তার নিজস্ব রেসিপির খাবারও খান তিনি।

বিবিসির প্রতিনিধিকে জানান, ইউটিউব তাকে একজন কোটিপতি বানিয়ে দিয়েছে। এটা এমন না কোনো ব্র্যান্ডের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন থেকে আয় করছেন। তিনি শুধুমাত্র ইউটিউব থেকেই লাখ টাকা আয় করছেন।

বিবিসির সাংবাদিক গাসিকিনকে প্রশ্ন করেছিলেন তিনি মাসে কত টাকা আয় করেন? তার হাস্যোজ্জ্বল উত্তর ছিল এই ধরেন মিলিয়ন ডলার।

গাসকিন বলেন, ‘আমি মনে করে এটা একটা মজার বিষয় এবং যা অন্যদেরকে আনন্দ দেয়। যারা উদ্বিগ্নতার মধ্যে থাকেন, যারা একা একা বসে সময় কাটান তাদের মধ্য থেকে অনেক সাড়া পেয়েছি। এর মধ্যে ক্যান্সার আক্রান্ত এমন অসংখ্য রোগীদের মেইলও পেয়েছি। আমি আমার ভিডিওর মাধ্যমে তাদের খাবারে চাহিদা ক্ষুধা বাড়াতে সাহায্য করি।’

বর্তমানে ইউটিউবে ভিডিও বানানো এখন তাদেরে একটি পারিবারিক ব্যবসা হয়ে গেছে। এক্ষেত্রে তার স্বামী এখন তাদের ব্যবসার ফুল টাইম ম্যানেজার। আর তার ছেলেদেরও নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল আছে।

সূত্র: বিবিসি


মন্তব্য