বিসিএস প্রিপারেশন: প্রিলি টু ভাইভা

রবিউল আলম লুইপা

ফেসবুক গ্রুপ, পেইজ ও ব্যক্তিগত ইনবক্সে বিসিএস রিলেটেড যে অনুসন্ধানটি সবচেয়ে বেশি পেয়ে থাকি; তা হলো কীভাবে প্রিপারেশন নেব বা কী কী বই পড়তে হবে? বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে প্রবেশের জন্য কঠোর পরিশ্রম, সঠিক দিকনির্দেশনা যেমন প্রয়োজন; তেমনি মানসম্মত বইও সমভাবে গুরুত্বপূর্ণ। তবে এটা সত্য যে, বই কাউকে ক্যাডার বানায় না এবং সব প্রকাশনীর বই পড়েই ক্যাডার হচ্ছে। তবে একটি ভাল বই আপনাকে দৌঁড়ের প্রতিযোগিতায় অনেকটাই এগিয়ে রাখবে। জব প্রিপারেশনে নতুন আগমন হলে লেখাটি আপনার জন্যই।
.
১) বিসিএস প্রিলিমিনারিঃ
ক) সিলেবাস পড়ুনঃ ৩৫ বিসিএসের আগ পর্যন্ত বিসিএস প্রিলিমিনারির জন্য কোন সিলেবাস ছিল না, শুধু রিটেনের  সিলেবাস ছিল। আপনি যদি সিরিয়াসলি বিসিএস পরীক্ষায় বসতে চান, পিএসসির ওয়েবসাইট বা গুগল থেকে বিসিএস প্রিলিমিনারির ১১ পৃষ্ঠার সিলেবাসটি ডাউনলোড করে মার্কস ডিস্ট্রিবিউশন এবং সাবজেক্ট ওয়াইজ টপিকগুলো চোখ বুলিয়ে নেয়া আপনার প্রথম কাজ। (নিচে সিলেবাস সংযুক্ত করা হলো)। দ্রষ্টব্যঃ ৩৫তম বিসিএসর সিলেবাসই এখন পর্যন্ত সর্বশেষ, এরপর আর নতুন সিলেবাস আসেনি।
.
খ) বিসিএস প্রশ্ন ব্যাংকঃ বাজারে ১০ম বিসিএস থেকে ৪০তম বিসিএস পর্যন্ত প্রশ্নগুলো দেখে বিসিএস প্রশ্ন সম্পর্কে ধারণা নিন। ১০ম বিসিএস এর আগে প্রিলি পরীক্ষা হত না বলে, এর আগের প্রশ্নগুলো কোন বইতে থাকে না। ৩৫ তম’র আগের বিসিএসর মত সাম্প্রতিক বিসিএসগুলোতে প্রশ্ন রিপিটেশনের ট্রেডিশন না থাকলেও বিগত প্রশ্ন আপনার জন্য বেঞ্চ মার্কিংয়ের কাজ করবে। বাজারে এ্যাসুরেন্স প্রকাশনীর বিসিএস প্রশ্ন ব্যাংক আমার ভালো লেগেছে। প্রফেসর জব সল্যুশন বইটিতেও বিসিএস+অন্যান্য সরকরির চাকরীর প্রশ্ন ব্যাংক পাবেন।
.
গ) বুকলিস্টঃ প্রিলি টিকার জন্য আপনাকে সাবজেক্ট স্পেশালিষ্ট হবার দরকার নেই, মোটামোটি অলরাউন্ডার হলেই হবে। হাজার হাজার বইয়ের লিস্ট মুখস্ত করায় ভয়ে অনেকেই প্রিপারেশন নেওয়ারই সাহস পায় না, বেকারদের আর্থিক সীমাবদ্ধতাও একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। তাই বই কম, পড়া বেশি;)

-যে কোন একটি প্রকাশনীর প্রিলি সিরিজ (৬টি বই) থেকে বাংলা, বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক কিনে নিন। বাজারে সব প্রকাশনী যাচাই করে বাইন্ডিং, বইয়ের সাইজ, লেখা সাজানো, ফ্রন্ট, তথ্য সকল বিচারে আমার কাছে প্রফেসরসই ভাল লাগে।
-ইংরেজির জন্য প্রফেসরস প্রিলি সিরিজের ইংরেজী বই না কিনে, ইংলিশ ফর কম্পিটিটিভ এক্সাম (এটাও প্রফেসরস) কিনবেন।
-ম্যাথ এবং বিজ্ঞান বই এর জন্য ওরাকল বেশি জনপ্রিয় এবং সর্বজন গ্রহণযোগ্য।
-প্রতি মাসে মাসিক কারেন্ট এফেয়ার্স (আপনার অন্য কিছু পছন্দ থাকলে সেটা) অবশ্যই কিনবেন।
-বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষার পূর্ব মূহুর্তে কারেন্ট এফেয়ার্স বিশেষ সংখ্যা এবং প্রিলিমিনারী ডাইজেস্ট (এস্যুরেন্স প্রিফারেবল) থেকে আপনার প্রিপারেশন এর শেষ ঝালাইটা করে নিতে পারেন। তবে এটা অপশনাল। সময় না পেলে বাদ দেয়া যেতে পারে।

এই ৬ টা বই+কারেন্ট এফেয়ার্স এর বাইরে প্রিলিমিনারি টেকার জন্য আর বই এর দরকার নাই।
তবে কেউ আরো এডভান্স প্রিপারেশন নিতে চাইলে সংবিধান (আইন মন্ত্রণালয় বা আরিফুর রহমান-এর), বাংলা (ভাষা ও সাহিত্য জিজ্ঞাসা, অগ্রদূত বাংলা), ইংরেজী (সাহিত্যের জন্য ইংলিশপিডিয়া, গ্রামারের জন্য ইংলিশ টিউটর), ম্যাথ (খায়রুলস বেসিক ম্যাথ), বিজ্ঞান (জামিলস বিজ্ঞান), বাংলাদেশ ও আন্তর্জার্তিকের জন্য আজকের বিশ্ব দেখতে পারেন।

২) বিসিএস লিখিতঃ
এখানেও আপনার প্রথম কাজ পিএসসি এর ওয়েবসাইট বা গুগল থেকে বিসিএস লিখিত এর ১০ পৃষ্ঠার সিলেবাস (৩৫ বিসিএস এর টা) ডাউনলোড করে মার্কস ডিস্ট্রিবিউশন এবং সাবজেক্ট ওয়াইজ টপিকগুলো চোখ বুলিয়ে নেয়া (ইমেজ আকারে পোস্ট টির সাথে সংযুক্ত করা আছে)।
বিসিএস লিখিত প্রিপারেশনে আপনার জ্ঞানের চেয়ে সৃজনশীলতার উপর গুরুত্ব দেয় হয়। তাই এখানে যত বই থেকে যত বিশেষভাবে তথ্য উপস্থাপন করতে পারবেন, আপনি ততই এগিয়ে থাকবেন। তবে মৌলিক প্রিপারেশনের জন্য যে বইগুলো সহায়ক হতে পারে, তা হলো,
-বাংলা, বাংলাদেশ, আন্তর্জাতিক এই তিন বিষয়ের জন্য এস্যুরেন্স বা প্রফেসরস প্রকাশনীর বই
-ইংরেজির জন্য এস্যুরেন্স বা মিলারস পাবলিকেশন্সের বই
-ম্যাথ আর সায়েন্সের জন্য ওরাকল প্রকাশনীর বই
-সংবিধান (আরিফুর রহমান) আর মুক্তিযুদ্ধ (মুক্তিযুদ্ধের ইতিবৃত্ত) এর জন্য আলাদা বই নিতে পারেন।
-বাংলাদেশের অর্থনৈতিক সমীক্ষা (চলতি বছর), দৈনিক সংবাদপত্র ও অন্যান্য বিষয় সংশ্লিষ্ট রেফারেন্স বই থেকে যত বেশি তথ্য উপাত্ত নিতে পারবেন, আপনার লেখা তত বেশি সমৃদ্ধ হবে।

২) বিসিএস ভাইভা
বিসিএস প্রিলি রিটেনের সিলেবাস থাকলেও একমাত্র বিসিএস ভাইভাতে কোন সিলেবাস দেয়া হয় না। তাই ভাইভা প্রিপারেশনের বিস্তৃতি অসীম। এখানে প্রিপারেশন নিবেন তিন স্তরে ভাগ করে।
-প্রথমে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, জেলা, অনার্স বিষয়ের গুরুত্বপর্ণ তথ্য নিজে নিজেই নোট করবেন (এটির বই সারা পৃথিবীতে নেই )
-সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ,আন্তর্জাতিক বিষয়ের তথ্য সংশ্লিষ্ট প্রিলি-রিটেনের বই বা অন্য রেফারেন্স থেকে পড়ে নিবেন।
-বিসিএস চয়েজলিস্টে আপনার প্রিপারেবল ক্যাডার সংশ্লিষ্ট বই-ই কেবল বাজারে পাবেন, ভাইভা প্রিপারেশনের জন্য। প্রথমে প্রফেসরস এর বিসিএস ভাইভা সহায়িকা (সকল ক্যাডার) বইটি সংগ্রহ করুণ। পাশাপাশি এস্যুরেন্স প্রকাশনী এর প্রশাসন, পুলিশ, পররাষ্ট্র এর আলাদা আলদা বইগুলো দেখতে পারেন।

বিসিএস স্বপ্নদ্রষ্টারা প্রিলি রিটেন ভাইভা সকল স্তরে সফল হয়ে স্পর্শ করুন আপন স্বপ্নকে, এগিয়ে আসুন দেশের প্রত্যক্ষ সেবায়। সকলের জন্য শুভকামনা।

সিলেবাস দেখতে ক্লিক করুন:BCS Syllebus

লেখক: রবিউল আলম লুইপা
৩৫ তম বিসিএস (শিক্ষা)
ক্যাডার মেধাতালিকায় দশম


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ