বিসিএস লিখিত: গতানুগতিক নয়; নিজের মতো করে লিখুন

  © টিডিসি ফটো

শুরুতেই মনে রাখা উচিত, ২০০ মার্কসের বিসিএস প্রিলি পরীক্ষা প্রার্থীর সংখ্যা কমানোর প্রক্রিয়ামাত্র, এ পরীক্ষার কোনও নম্বর যোগ হয় না। অনেকেই এর পেছনে অতিমাত্রায় শ্রম দেন, কিন্তু প্রিলি পরীক্ষার পর অলস সময় পার করেন এবং লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি তাড়াহুড়ো করে নেন; ফলে দেখা যায় প্রিলিতে টিকলেও রিটেনে টিকেন না কিংবা প্রিলি-রিটেন-ভাইভা পার হয়েও ক্যাডার পান না। ৪০তম বিসিএস লিখিত পরীক্ষার পূর্ণাঙ্গ প্রস্তুতি নিয়ে আজকের লেখা:

ক. শুরুতেই কিছু টিপস:
১. অবশ্যই প্রত্যেক বিষয়ের বিগত সকল প্রশ্ন (লিখিত+পারলে প্রিলি) পড়ে ফেলতে হবে
২. যেকোন কিছু লিখতে গেলে গুছিয়ে লিখুন (ভূমিকা, মূল উত্তর, উপসংহার)
৩. গতানুগতিক নয়; নিজের মতো করে লিখুন
৪. বেশি না লিখে বরঞ্চ বেশি ডাটা, চিত্র, ম্যাপ দিন; নীল রঙের কলমের ব্যবহার শিখুন
৫. নম্বর অনুযায়ী উত্তরের সাইজ যেন সমান হয়; যেমন-৫ নম্বরের উত্তরে এক প্রশ্নে ৪ পৃষ্ঠা অন্য প্রশ্নে ১ পৃষ্ঠা যেন না হয়
৬. উত্তর করার ক্ষেত্রে নম্বর অনুযায়ী সময় দিন; যেমন-২০০ মার্কসের জন্য ২৪০ মিনিট সময় থাকলে প্রত্যেক মার্কসে কত মিনিট সময় আছে সেটা মাথায় রেখে উত্তর লিখুন
৭. একই পৃষ্টায় একাধিক প্রশ্নের উত্তর লেখার অভ্যাস বাদ দিন। প্রত্যেক প্রশ্নের উত্তর যেন নতুন পৃষ্টায় শুরু হয়
৮. কোনও প্রশ্নের উত্তরই ছেড়ে আসবেন না

খ. ইংরেজি: ২০০ নম্বর
১. মূল পার্থক্য এই বিষয়েই হবে, তাই একে মোটেও অবহেলা করবেন না
২. যত পারুন প্র‍্যাকটিস করুন- অনুবাদ, প্যাসেজ
৩. লেটার লেখার নিয়ম যেন ভুল না হয়
৪. চলমান ইস্যুর ওপর ইংরেজি আর্টিক্যাল পড়ার অভ্যাস করুন; অনুবাদ, রচনায় কাজে আসবে। এ ক্ষেত্রে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স, সম্পাদকীয় সমাচার ভাল সোর্স হতে পারে।
৫. যথেচ্ছ ভোকাবুলারি মুখস্থ না করে বরং প্যাসেজ, অনুবাদ সলভ করতে গিয়ে যেগুলো সামনে পড়ে সেগুলোই ভালভাবে শিখুন।

গ. বাংলা: ২০০ নম্বর
১. কোনও প্রশ্নের উত্তরে লেখকের নাম কিংবা যেকোনও বানান ভুল হলে ০ পাবেন।
২. ব্যাকরণ, বাংলা সাহিত্য, গ্রন্থ সমালোচনার ওপর জোর দিন
৩. ব্যাকরণ (৩০): 
৩.১. বিগত সালের অনুশীলন: শব্দ গঠন, বানান/বানানের নিয়ম, বাক্যশুদ্ধি/প্রয়োগ-অপপ্রয়োগ, প্রবাদ-প্রবচন, বাক্য রূপান্তর
৩.২. বোর্ড ব্যাকরণ বই থেকে: অন্যান্য ব্যাকরণের নিয়ম একবার হলেও দেখে যাবেন 
৪. ভাব সম্প্রসারণ: ৩-৪ পৃষ্ঠা লিখতে হবে
৫. সারমর্ম: ৩-৪ লাইন লিখতে হবে
৬. বাংলা সাহিত্য (৩০):
৬.১. প্রত্যেক প্রশ্ন কমপক্ষে ১ পৃষ্ঠা লিখতে হবে 
৬.২. প্রিলির পড়াগুলো ভালভাবে ঝালাই করে যেতে হবে
৬.৩. চার ধরনের প্রশ্ন আসে: 
ক) প্রাচীন ও মধ্যযুগ 
খ) সাহিত্য- সমালোচনা/ মূল বক্তব্য/ চরিত্র বিশ্লেষণ 
গ) সাহিত্যিক- বৈশিষ্ট্য, উপাধি, ছদ্মনাম 
ঘ) মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশ, যুগ, আন্দোলন, পত্রিকা
৭. সংলাপ (১৫): ২-৩ পৃষ্ঠা
৮. পত্র লিখন (১৫): ২ পৃষ্ঠা, নিয়ম যেন ভুল না হয়
৯. অনুবাদ (১৫): অনুশীলন
১০. গ্রন্থ সমালোচনা (১৫): 
১০.১. ২-৩ পৃষ্ঠা লিখতে হবে
১০.২. চার ধাপে লিখতে হবে
ক) গ্রন্থ পরিচয়: এটি কি, কার লেখা, কি নিয়ে লেখা
খ) প্রশংসা: গাম্ভীর্যপূর্ণ প্রশংসা, ঘটনাপ্রবাহের প্রশংসা, যুগ অনুসন্ধান, ঐ যুগের অন্য সাহিত্যের সাথে তুলনা
গ) সীমাবদ্ধতা: যুগের সাথে যায় কিনা, উদ্দেশ্য সফল কিনা, চরিত্রচিত্রণ সফল কিনা, কোন চরিত্রের প্রতি Biased কিনা
ঘ) আবার প্রশংসা: বাকি প্রশংসা, বিশ্ব সাহিত্যের সাথে তুলনা করে তাদের পর্যায়ে তোলা, কালজয়ী/অন্যান্য বিশেষণ দেওয়া, বইটা সবার পড়া উচিত কিনা সেটা বলা
১০.৩. ক্যাটাগরি ধরে ধরে শেষ করুন। যেমন- মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস (রাইফেল রোটি আওরাত), ভাষা আন্দোলনভিত্তিক গ্রন্থ/ উপন্যাস (আরেক ফাল্গুন), রাজনৈতিক উপন্যাস (গোরা) ইত্যাদি। 
১১. রচনা লিখন: কমপক্ষে ১২ পৃষ্ঠা।

ঘ. বাংলাদেশ বিষয়াবলি: ২০০
১. সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস, অর্থনৈতিক ডাটা, ভিশন/প্ল্যান/উদ্যোগ হলো আপনার হাতিয়ার
২. সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধ- গাইডের পাশাপাশি রেফারেন্স বই পড়ুন
৩. কমপক্ষে দুটি গাইড পড়ুন
৪. সাম্প্রতিক তথ্য/ডাটা একটা খাতায় লিখে রাখুন

ঙ. আন্তর্জাতিক: ১০০
১. তারেক শামসুর রাহমানের 'বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি' 'নয়া বিশ্বব্যবস্থা', সুলতান মাহমুদের 'বিশ্ব রাজনীতি', আব্দুল হালিমের 'আন্তর্জাতিক সম্পর্কের মূলনীতি' এবং শাহ মো. আবদুল হাইয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্কের গাইড অবশ্যই পড়বেন।
২. সাম্প্রতিক বিষয়- কারেন্ট অ্যাফেয়ার্সের ফিচারগুলো পড়ুন
৩. কমপক্ষে দুটি গাইড পড়ুন।

চ. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি: ১০০
১. জোর দিন বিগত প্রশ্নে
২. পড়লেই কম্পিউটার ও ইলেকট্রনিকস এর (২৫+১৫) কমন পড়ে 
৩. বাকি ৬০ নম্বর: ৩৫-৩৮ এর প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে দেখুন কোন কোন অধ্যায় থেকে কিভাবে আসে। যেমন- ক থেকে যদি ৩৫-৩৮ প্রতিবারই আসে, তবে এটা অবশ্যই পড়বেন। কিন্তু খ থেকে ৩৬, ৩৮ এবং গ থেকে ৩৫, ৩৭- তো বুঝতেই পারছেন গ গুরুত্বপূর্ণ।

ছ. গণিত: ৫০
১. বিজ্ঞানের মতোই অধ্যায়ভিত্তিক প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে কিছু অধ্যায় বাদ দিন।
২. অবশ্যই ৯ম-১০ম শ্রেণির সাধারণ ও উচ্চতর গণিত বই থেকে অংক দেখে যাবেন
৩. বিন্যাস, সমাবেশ, সম্ভাব্যতা যদি পড়তে চান, তবে উচ্চ মাধ্যমিক গণিত বই থেকে।

জ. মানসিক দক্ষতা: ৫০
১. বিগত (প্রিলি+লিখিত) প্রশ্ন অনুশীলন
২. Indiabix website, Sawaal website, youtube থেকে ট্রিকস শিখতে পারেন।

লেখক: রহমত আলী শাকিল
পররাষ্ট্রে ১ম, ৩৭তম বিসিএস


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ