কারিগরি শিক্ষার বিস্তারে আবাসিক স্কুল হচ্ছে ৩২৯ উপজেলায়

  © সংগৃহীত

চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) প্রতিষ্ঠা করছে সরকার। গ্রামপর্যায়ে কারিগরি শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে গ্রহণ করা হয়েছে সাড়ে ২০ হাজার কোটি টাকার এ প্রকল্প। এসব প্রতিষ্ঠানের আবাসিক-অনাবাসিক মিলিয়ে প্রায় সহস্রাধিক শিক্ষার্থীকে হাতেকলমে দেয়া হবে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা। এখানে ২০০ ছাত্রী বসবাস করবে হোস্টেলে। তাদের সঙ্গে আরও ৮ শতাধিক অনাবাসিক শিক্ষার্থী লেখাপড়া করবে। লেখাপড়া শেষ করেই দেশে-বিদেশে যোগ দেবে কর্মজীবনে। অবদান রাখবে পরিবার, সমাজ ও জাতীয় অর্থনীতিতে।

সরকার কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নে এমন আরও কয়েকটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে বলে জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। তারা জানান, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১টি করে মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট স্থাপন; চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী ও রংপুরে একটি করে ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ স্থাপন; ২৩ জেলায় ১টি করে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট স্থাপন; কুমিল্লা, রাজশাহী, যশোর ও পটুয়াখালীতে সার্ভে ইনস্টিটিউট স্থাপন; বিদ্যমান ৪৯টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিটিউটের অবকাঠামো উন্নয়ন ও বিদ্যমান ৬৪ টিএসসির সক্ষমতা বৃদ্ধি। পাশাপাশি কারিগরি শিক্ষায় ভর্তি বৃদ্ধি ও ঝরে পড়া রোধে সরকার উপবৃত্তির ব্যবস্থাও করেছে বলে জানান তারা।

৫ বছর মেয়াদি এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত স্কুল ও কলেজে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে লেখাপড়া শুরু চলচে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত। অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত সাধারণ শিক্ষা ও একটি করে কারিগরি বিষয় থাকবে। ১ হাজার ৮০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করতে পারবে প্রতিটি প্রতিষ্ঠান। এরমধ্যে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণিতে ৩৬০ জন, ৪টি ট্রেডে এসএসসিতে (ভোকেশনাল) ২৪০ জন, এইচএসসিতে (ভোকেশনাল) ২৪০ জন ও ৪টি শর্ট কোর্সে ২৪০ জন থাকবে।

কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, গত ২১ জানুয়ারি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটিতে (একনেক) ‘উপজেলা পর্যায়ে ৩২৯টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ (টিএসসি) স্থাপন (২য় পর্যায়)’ নামে এ প্রকল্পটি পাস হয়েছে। এটির ব্যয় ধরা হয়েছে ২০ হাজার ৫২৫ কোটি ৬৯ লাখ টাকা।

কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মুনশী শাহাবুদ্দীন আহমেদ জানান, দেশে বর্তমানে চলমান প্রকল্পগুলোর মধ্যে বাজেটের দিক থেকে চতুর্থ বড় প্রকল্প এটি। কর্মক্ষম যুবকদের দক্ষ ও যোগ্য করে তুলে দেশে-বিদেশে চাকরি বাজারের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় এ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। শিগগিরই প্রকল্পটির কার্যক্রম শুরু হবে।

তিনি আরও জানান, প্রতিষ্ঠানগুলোতে ২শ আবাসিক ছাত্রীর জন্য ৬ তলা ভবন নির্মাণ করা হবে। থাকবে খেলার মাঠসহ সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা। প্রকল্পের অধীনে প্রতিটি টিএসসির জন্য উপজেলা পর্যায়ে ৯৮৪ একর ভূমি অধিগ্রহণ ও ক্রয় করা হবে। এতে আরও থাকবে একাডেমিক কাম ওয়ার্কশপ ও প্রশাসনিক ভবন, শিক্ষক ডরমেটরি, শহীদ মিনার, মুক্তিযোদ্ধা মনুমেন্ট, বাউন্ডারি ওয়াল, অভ্যন্তরীণ রাস্তা, গভীর নলকূপ, ৫০০ কেভিএ সাবস্টেশন এবং পানি সংরক্ষণাগার ইত্যাদি।

 


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ