শিক্ষকদের ক্লাসে ফেরাতে সড়ক অবরোধ শিক্ষার্থীদের

ফেনী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের সামনে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা
ফেনী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের সামনে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা  © টিডিসি ফটো

ফেনী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে শিক্ষকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে ক্লাসে ফিরে আসার দাবিতে সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। রবিবার সকাল ১১টায় ফেনী-পরশুরাম, ছাগলনাইয়া আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করে দ্বিতীয় শিফটের শিক্ষার্থীরা।

এ সময়ে প্রথম শিফটের শিক্ষার্থীরাও আন্দোলনে অংশ গ্রহন করে। শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করে প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দেয়। পরে কলেজের অধ্যক্ষ ও কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ তুলে নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে।

শিক্ষার্থীরা সমাবেশে বলেন, যতদিন পর্যন্ত দ্বিতীয় শিফটের ক্লাসে শিক্ষকরা ফিরবেন না ততদিন পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। একইসঙ্গে প্রথম শিফটের ক্লাসও বন্ধ থাকবে বলে জানায় তারা।

এদিকে দ্বিতীয় শিফটের পারিশ্রমিক হ্রাসের প্রতিবাদে ও উনিশ মাসের বকেয়া বেতনভাতার দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে ফেনী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে শিক্ষকদের কর্মবিরতির চলছে। এ কর্মবিরতি প্রত্যাহারের জন্য শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলন।

শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘শিক্ষকদের দাবির প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আমরা কর্মবিরতি প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি। শিক্ষকরা ক্লাস না নেয়ায় তাদের লেখাপড়ায় ক্ষতি হচ্ছে।’

তারা জানান, ‘দেড় বছর ধরে শিক্ষকরা দ্বিতীয়য় শিফটের কর্মবিরতি করছেন। যার কারণে আমরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি। শিক্ষকদের কাছে অনুরোধ ক্লাসে ফিরে আসুন।’

আন্দোলনরত দ্বিতীয় শিফটের শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, ‘তাদের ক্লাসে যদি শিক্ষক ফিরে না যান তাহলে ইন্সটিটিউট খুলতে দেয়া হবে না। সকল ধরণের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হবে।’

শিক্ষকদের আন্দোলন যৌক্তিক দাবি করে ফেনী পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শিক্ষকরা আন্দোলন করে আসছে। আগামি সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে এ বিষয়ে বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। বৈঠকে ইতিবাচক সাড়া পেলে ছাত্র-শিক্ষকরা ক্লাসে ফিরে যাবে।’

ফেনী পলিটেকনিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি তাজ উদ্দিন পলাশ বলেন, ‘মূল বেতনের ৫০ শতাংশকে (জাতীয় পে স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী) প্রধান করে পর্যায়ক্রমে শতভাগে উন্নীত করতে হবে সরকারকে। বারবার আশ্বাস দিয়েও তা বাস্তবায়ন করেনি সরকার।

তিনি বলেন, ‘মন্ত্রী-সচিবরা আমাদের আন্দোলনকে যৌক্তিক মনে করলেও কোনো এক অদৃশ্য কারণে পরিপত্র জারি করে দাবির পক্ষে সাড়া দিচ্ছেন না। ফলে আমাদের পক্ষে ২য় শিফটের ক্লাস থেকে বিরত থাকা ছাড়া কোনো উপায় নেই।’


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ