দেশের জনগণই সবচেয়ে বড় সম্পদ: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বাংলাদেশে তেমন খনিজ সম্পদ নাই। তবে জনগণই এ দেশের সবচেয়ে বড় সম্পদ। বাংলাদেশের বিপুল জনসংখ্যাকে জনসম্পদে রুপান্তরিত করতে কারিগরি শিক্ষার কোন বিকল্প নাই। কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্র বৈপ্লবিক পরিবর্তন দরকার। বর্তমান সরকার কারিগরি শিক্ষার উপর সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। রবিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ঢাকা মহিলা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের আয়োজনে জব ফেয়ার এর উদ্বোধনের সময় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

ডা. দীপু মনি বলেন, ২০০৯ সালে বাংলাদেশে শতকরা এক শতাংশ ছাত্র কারিগরি শিক্ষায় ভর্তি হয়েছিল বর্তমানে তা বেড়ে হয়েছে ১৫ শতাংশ। বর্তমানে ছাত্রের সংখ্যা ৫৮ হাজার, শিগগির তা এক লাখে উন্নিত করা হবে। তিনি বলেন, বর্তমানে দেশে ৪৯টি পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট আছে আরও ২৩টি নতুন পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট স্থাপন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ১০০টি টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ স্থাপন করা হচ্ছে।

শিক্ষামন্ত্রী নারী ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, শুধুমাত্র চাকরিপ্রার্থী হলেই হবে না যথার্থ জ্ঞান ও যোগ্যতা নিয়ে উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে হবে। কারিগরি শিক্ষা ক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ বানানোর জন্য শিক্ষার এ খাতে নারীদের বিদ্যমান কোটা ২০ শতাংশে উন্নীত করা হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, এ ধরনের জব ফেয়ার আয়োজন এর ফলে চাকুরীপ্রার্থী এবং চাকুরীদাতাদের মধ্যে যোগসূত্র স্থাপিত হয় যা শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ জীবনের জন্য সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে।

কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক রওনক মাহমুদের সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের সচিব মো আলমগীর, কারিগরি ও মাদ্রাসা বিভাগের অতিঃসচিব কে এম জাকির হোসেনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, এই জব ফেয়ারে নিয়োগকারী কর্তৃপক্ষ সরাসরি চাকরীপ্রাথীদের ইন্টারভিউ নিবে এবং চাকরীর নিয়োগপত্র দিবে। বিকালে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী চাকরীপ্রার্থীদের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দিবেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ