এবার ঢাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের পাল্টা কর্মসূচি

এবার ঢাবিতে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের পাল্টা কর্মসূচি
  © টিডিসি ফটো

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে কটূক্তির অপরাধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অব্যাহতি পাওয়া শিক্ষক অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খানকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে এবার পাল্টা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে  ‍মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। আজ বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকরিতে পুনর্বহালের দাবি জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনপি-জামায়াতপন্থী সাদা দলের শিক্ষকরা। আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত মানববন্ধন থেকে তারা এ দাবি জানান।

এসময় তাকে অব্যাহতি দেওয়া স্বাধীন মতপ্রকাশ ও মুক্তবুদ্ধি চর্চার বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যের পরিপন্থী উল্লেখ করে সাদা দলের শিক্ষকরা এ ধরণের ‘নজিরবিহীন ও ন্যাক্কারজনক’ সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। একইসঙ্গে এ সিদ্ধান্ত বাতিল করে তাঁকে চাকরিতে পূর্নবহাল করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানান।

অপরদিকে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘সংবিধান লঙ্ঘন করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে কটূক্তি করার অপরাধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের বহিষ্কৃত শিক্ষক ড. মোর্শেদ হাসান খানকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।’

তারা বলেন, ‘দীর্ঘদিন কালক্ষেপণ করার মাধ্যমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে বহাল রাখার চেষ্টা করলেও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের আন্দোলনের মুখে অধ্যাপক মোর্শেদ হাসানকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। সংবিধান লঙ্ঘন ও রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা এ্যাটর্নি জেনারেলের সুপারিশের পরেও পার পেয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছিল তিনি।’

এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও সরকারের কাছে আহবান জানিয়ে তারা বলেন, সংবিধান লঙ্ঘন করে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি ও বঙ্গবন্ধুকে কটূক্তি করার অপরাধে অধ্যাপক মোর্শেদ হাসানকে অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। অন্যথায় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ আরও কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করবে বলে তারা হুশিয়ার উচ্চারণ করেন।

প্রতিবাদ সমাবেশের সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল। সঞ্চালনা করেন কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক আল মামুন। বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি সনেট মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক ইয়াসির আরাফাত তুর্য প্রমুখ।


মন্তব্য