‘আদর্শের কাছে পরাজিত রক্তের বন্ধন’

ছাত্রদলের আসন্ন কাউন্সিলে সভাপতি পদপ্রার্থী কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের সঙ্গে সম্পর্ক অস্বীকার করেছেন তার বাবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি কাজী রফিকুল ইসলাম। বুধবার এ ঘোষণার পর শ্রাবণের পাশে দাঁড়িয়েছেন তার বন্ধু ও রাজনৈতিক সতীর্থদের অনেকেই। 

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, আগামী ১৪ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের কাউন্সিল। সংগঠনটির সম্ভাব্য সভাপতি পদে নানা হিসেব-নিকেশ, সমর্থন আর আলোচনায় এগিয়ে রয়েছেন কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ। এ প্রেক্ষাপটে তার পরিবারের সদস্যদের আওয়ামী লীগের রাজনীতির বিষয়টি ফের সামনে এসেছে। ছেলে ছাত্রদলের রাজনীতি করে এ নিয়ে তাদের পরিবারের বিরুদ্ধেও স্থানীয় আওয়ামী লীগের সদস্যরা আঙ্গুল তুলেন। 

এ অবস্থায় শ্রাবণের বাবা যশোরের কেশবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম নিজ সন্তানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন।  বুধবার যশোর প্রেস ক্লাবে ওই সংবাদ সম্মেলন শ্রাবণের বাবা জানান, ‘ছেলে ভিন্নমতের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকায় ১৫ বছর ধরে পরিবারের সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন। পারিবারিক কোনো অনুষ্ঠানেও শ্রাবণ অংশ নেয়নি। অথচ একটি মহল প্রচার করছে, আমার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ আছে বিএনপির।’ সংবাদ সম্মেলনে ছেলের ভিন্নমতের রাজনৈতিক আদর্শের কারণে নিজের সুদীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে দাবি করেন কাজী রফিকুল ইসলাম। এমনকি ছেলের কারণে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হয় কাজী রফিকুল ইসলামকে।

তবে পরিবার অস্বীকার করলেও শ্রাবণ পাশে পেয়েছেন বিএনপি ও ছাত্রদলের একটি বড় অংশকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন শ্রাবণের বন্ধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী ও ছাত্রদলের সাবেক সহ-গনসংযোগ বিষয়ক সম্পাদক এস এম মামুন-অর-রশিদ (মামুন)। ‘শ্রাবণ তুমি জাতীয়তাবাদী আদর্শের এক বিরল ইতিহাস’ শিরোনামে বন্ধুদের সঙ্গে ছবি সম্বলিত ফেসবুক স্ট্যাটাসে মামুন লিখেছেন, ‘আজকে প্রথম আদর্শের কাছে রক্তের বন্ধন পরাজিত হল......আজকে শুরুতেই বাকশালী শক্তিকে তুমি পরাজিত করেছ, দুঃখ নয় দোস্ত তুমি একটা ইতিহাস, তুমি একটা সাধারণ জ্ঞান যেটা সারা পৃথিবীতে বিরল!! আমরা বন্ধুরা আর বিএনপিই তোমার পরিবার!! কাউন্সিলরা তোমাকে নিরাশ করবেন না ইনশাআল্লাহ্!! বিজয় তোমারই......!!’ ছবিতে থাকা শ্রাবণের বন্ধুরা সবাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী এবং ছাত্রদলের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ও কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক নেতা। 

মামুনের এফবি স্ট্যাটাস
মামুনের এফবি স্ট্যাটাস


এদিকে বাবার সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে ছেলে কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ ‘দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস’কে বলেন, পরিবারের সব কথা শুনলে ১৯৭১ সালে এদেশের মানুষ জীবন বাজি রেখে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নিতে পারতেন না। দেশ স্বাধীন হতো না। একজন শিক্ষিত নাগরিক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হিসেবে আমি সঠিক আদর্শ বেছে নিয়েছি বলে মনে করি। জিয়াউর রহমানের আদর্শই সর্বোত্তম আদর্শ। পরিবার কিংবা কোনো বাঁধা-ই আমাকে আদর্শচ্যুত করতে পারেনি, পারবে না।

বাবার সংবাদ সম্মেলন সম্পর্কে কোনো আক্ষেপ নেই জানিয়ে শ্রাবণ বলেন, আমাকে আওয়ামী পরিবারের সন্তান বলে অপবাদ দেওয়া হতো। আজ আমি ১৬ বছর পর সে কলঙ্ক থেকে মুক্ত হলাম। 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ