ভাইয়ের পাঞ্জাবী ধরে বলেছি ‘আমাকে বাঁচান’

কোমরে, পিঠে লোহার চেয়ার দিয়ে মারছে। পরে প্লাস্টিকের চেয়ার ছুড়ে মারতে থাকলো। আমি বাইরে যাচ্ছি। পরে দেখি তিলোত্তমা পড়ে গেছে। ওকে শুইয়ে পানি দিলাম। যখন বাইরে আসলাম; তখন কিছু ছেলে ধাওয়া দিলো। তখন আল আমিন রহমান আমাকে ধরে কোন রকম সেফ করলো।

আবার ধাওয়া দিলো ডাকসুর সামনে। তখন দৌড় দিয়ে মো. রুম্মান হোসেন ভাইয়ের পাঞ্জাবী ধরে হাঁপাচ্ছি আর বলছি- ভাই, আমাকে বাঁচান। ভাই সেফ করে ঢাকা মেডিকেল নিয়ে গেল। আজ মেরেই ফেলতো আমার ছাত্রলীগের ভাইয়েরা। আমাকে, আমাদের। [ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

লেখক: খাদিজাতুল কুবরা, সাবেক সভাপতি, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হল ছাত্রলীগ ও  সাবেক সহ-সম্পাদক, কেন্দ্রীয় কমিটি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ