শিরোপা জয় বিশ্বকাপে ভালো খেলতে অনুপ্রেরণা যোগাবে

আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। দাপটের সাথেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে টাইগাররা। স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ও সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে পাত্তাই দেয়নি টাইগাররা। বাংলার বাঘেরা যেভাবে খেলেছে, তাতে প্রশংসার দাবীদার মাশরাফি বাহিনী। লিগ পর্বে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের পর, ফাইনালেও দুর্দান্ত নৈপুণ্য দেখিয়েছে বাংলাদেশ। আর তাতেই প্রথমবারের মত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোন টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ের স্বাদ পেল বাংলাদেশ। আর এই জয়কে ‘মাত্র শুরু’ বলে অ্যাখায়িত করলেন বাংলাদেশ দলের কান্ডারি মাশরাফি বিন মর্তুজা।

ফাইনাল শেষে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের যাত্রা মাত্র শুরু হলো এবং আশা করি ভবিষ্যতে এটি ধরে রাখতে পারবো আমরা।’আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ওয়ানডে ও টি-২০ মিলিয়ে গতকালের আগে মোট ৬টি টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলেছিলো বাংলাদেশ। শিরোপার দ্বারপ্রান্তে গিয়েও হতাশাকেই সঙ্গী করতে হয়েছে তাদের। অবশেষে লাকী সেভেনে এসে শিরোপা খড়া ঘুচলো বাংলাদেশের। প্রথমবারের মত জিতলো কোন ট্রফি। আয়ারল্যান্ডে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে বৃষ্টি আইনে ৫ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ।

ছয়বার ব্যর্থ হবার পর অবশেষে জয়ের তৃপ্তিতে উচ্ছসিত বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি বলেন, ‘আমরা আগের ছয়বার ফাইনাল খেলেও পারিনি। অবশেষে সপ্তম বারে এসে শিরোপা জিততে পারলাম। শিরোপা জয় এক দারুন অনুভূতি, খুবই ভালো লাগছে। দলের সবাই অনেক খুশি।’

বৃষ্টির কারণে ২৪ ওভারে নামিয়ে আনা হয় ম্যাচ। ২৪ ওভারে ১ উইকেটে ১৫২ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ফলে বৃষ্টি আইনে ম্যাচ জয়ের জন্য ২১০ রানের বড় টার্গেট পায় বাংলাদেশ। জবাব দিতে নেমে ওপেনার সৌম্য সরকারের ৪১ বলে ৬৬ ও মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেনের ২৪ বলে অপরাজিত ৫২ রানের সুবাদে ৭ বল হাতে রেখেই ২১৩ রান তুলে ম্যাচ জিতে নেয় টাইগাররা। সৌম্য ৯টি চার ও ৩টি ছক্কা ও মোসাদ্দেক ২টি চার ও ৫টি ছক্কা মারেন।

মাত্র ২০ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করে ওয়ানডে ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে দ্রুততম হাফ-সেঞ্চুরির রেকর্ড গড়েন মোসাদ্দেক। এই জয়কে দলীয় পারফরমেন্সের ফসল হিসেবে দেখছেন মাশরাফি। তাই দলের প্রশংসা করতে ভুল করেননি তিনি, ‘এ জয়টা পুরোপুরি টিমওয়ার্ক। শুরুতে দারুণ জুটি গড়েছিল তামিম-সৌম্য। যেভাবে মারমুখী ব্যাটিং দরকার ছিল তেমনই করলো সৌম্য। মাঝে মুশফিক রানের চাকা সচল রেখেছে। আর শেষ দিকে মোসাদ্দেক এবং মাহমুদুল্লাহর দুর্দান্ত ফিনিশিং। এ ম্যাচে দারুন পারফরমেন্স ছিলো দলের।’

ত্রিদেশীয় সিরিজের সাফল্য নিয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপের মিশনে নামছে বাংলাদেশ। শিরোপা জয় আসন্ন বিশ্বকাপে ভালো খেলতে অনুপ্রেরণা দিবে বলে জানান মাশরাফি, ‘বিশ্বকাপ আমাদের জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জ। এই জয় আসন্ন বিশ্বকাপে ভালো পারফরমেন্স করতে অনুপ্রেরণা দেবে আমাদের। বড় টার্গেট তাড়া করে ম্যাচ জয়ের জন্য আমরা এখন অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী।’


মন্তব্য