টিউশন ফি পরিশোধে লোন নেওয়ার পরামর্শ স্কুল কর্তৃপক্ষের

  © সংগৃহীত

রাজধানীর ডিপিএস এসটিএস (দিল্লি পাবলিক) স্কুল শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি পরিশোধ করতে অভিভাবকদের ঋণ নিতে পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান মাইডাস ফাইন্যাসিং থেকে দীর্ঘমেয়াদি এই ঋণ নিতে বলা হয়েছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ এ প্রতিষ্ঠানের সাথে ঋণের ব্যাপারে কথা বলেছে। এখন কোনো অভিভাবক চাইলে এ প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ নিতে পারবেন। আজ শনিবার (৬ জুন) অভিভাবকদের কাছে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

স্কুলের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বর্তমান পরিস্থিতিতে শিক্ষকরা অনলাইনে ক্লাস নিচ্ছেন। তারা শিক্ষায় অবিচ্ছিন্ন ধারাবাহিকতা বজায় রাখছেন। বর্তমানে স্কুলের কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি আদায় করাটা জরুরি হয়ে পড়েছে। বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে অনেক অভিভাবক আর্থিক সংকটে রয়েছেন। এজন্য স্কুলের পক্ষ থেকে মাইডাস ফাইন্যাসিং প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করে অভিভাবকদের লোনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, অভিভাবকরা চাইলে এ প্রতিষ্ঠান থেকে লোন নিয়ে তার সন্তানের মাসিক টিউশন ফি পরিশোধ করতে পারবেন। অভিভাবকদের সুবিধার্থে এ ধরনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ব্যবস্থা করতে পেরে কর্তৃপক্ষ নিজেদের সন্তুষ্ট মনে করছে। ভবিষ্যতে এ ধরনের আরও লোভনীয় অফারের সুযোগ তৈরি করা হবে।

এদিকে এমন প্রস্তাবের বিষয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন ডিপিএস এসটিএস স্কুলের অভিভাবকরা। অভিভাবক ফোরামের পক্ষ থেকে এক চিঠিতে স্কুল কর্তৃপক্ষকে বলা হয়েছে, বর্তমান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে যেখানে মানুষের আয়-উপার্জন বন্ধ। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে অনেকের কষ্ট হচ্ছে। পরিবার চালাতে তারা হিমশিম খাচ্ছেন। ফলে সন্তানের টিউশন ফি পরিশোধ করতে পারছেন না।

এতে আরও বলা হয়, বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় অভিভাবকদের কাছে টিউশন ফি আদায় ও চাপ প্রয়োগ না করতে সরকারিভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। অথচ এ সিদ্ধান্তকে উপেক্ষা করে স্কুল কর্তৃপক্ষ টিউশন ফি আদায়ে নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করছে। এতে অনেকে অপারগতা স্বীকার করলে বর্তমানে সুদে লোন নিয়ে টিউশন ফি দিতে বলা হচ্ছে।

এ বিষয়ে স্কুলটির অভিভাবক ফোরামের সভাপতি ব্যারিস্টার ওমর ফারুক বলেন, করোনার এই সংকটে টিউশন ফি আদায়ের জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ অস্থির হয়ে পড়েছে। যেখানে মানুষ প্রতিদিন নিজেদের মৌলিক চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছেন, সেখানে লোন নিয়ে টিউশন ফি পরিশোধ করতে বলছেন। এটি একটি অমানবিক আচরণ।

তিনি বলেন, স্কুল কর্তৃপক্ষের এ সিদ্ধান্ত আমরা মেনে নেব না। এর প্রতিবাদে অভিভাবকদের পক্ষ থেকে ৫০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফের দাবি জানানো হয়েছে। এটি মেনে নেয়া না হলে সব অভিভাবকের স্বাক্ষর নিয়ে সরকারের বিভিন্ন দফতর-সংস্থায় লিখিতভাবে অভিযোগ দিতে বাধ্য হবো।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ