হাতির লাথিতে আহত রিয়াজ অ্যাম্বুলেন্সে করে পরীক্ষাকেন্দ্রে

  © সংগৃহীত

বন্য হাতির লাথিতে আহত সেই এসএসসি পরীক্ষার্থী মোহাম্মদ রিয়াজ (১৫) হাসপাতাল থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে পরীক্ষাকেন্দ্রে গেছে। শনিবার সে আনোয়ারা উপজেলার বটতলী এস এম আউলিয়া উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে ইসলাম ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ের পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। আহত মোহাম্মদ রিয়াজ বলেন, ‘শরীরে প্রচণ্ড আঘাত, এরপরও কোনোভাবে পরীক্ষা দিলাম।’

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় উপজেলার বৈরাগ ইউনিয়নের দক্ষিণ বন্দর গ্রামে নিজের বাড়ির পাশে হাতির লাথিতে মোহাম্মদ রিয়াজ আহত হয়। সে দক্ষিণ বন্দর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে। দক্ষিণ বন্দর উচ্চবিদ্যালয়ের ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে সে এবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে।

রিয়াজের পারিবারিক সূত্র জানায়, ওই রাতে হাতির দল উঠানে এলে পরিবারের সবার সঙ্গে দিগ্‌বিদিক ছুটতে থাকে রিয়াজ। একপর্যায়ে পাকা ঘরের ছাদে আশ্রয় নেয়। পরে হাতি চলে গেছে মনে করে ছাদ থেকে নেমে রাস্তায় গিয়ে হাতির সামনে পড়ে রিয়াজ। ওই সময় হাতির লাথিতে সে নালায় পড়ে যায়। প্রচণ্ড আঘাতে তার হাত-পা ও মুখ রক্তাক্ত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে আজ অ্যাম্বুলেন্সে করে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে পরীক্ষাকেন্দ্রে আসে রিয়াজ। পরীক্ষা শেষে তাকে আবার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়

রিয়াজের বাবা মোহাম্মদ আলী বলেন, ‘পরীক্ষাটি দিতে না পারলে ছেলেটির একটি বছর নষ্ট হয়ে যাবে। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে পরীক্ষাকেন্দ্রে রিয়াজকে নিয়ে আসি।’

বটতলী এস এম আউলিয়া উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের সচিব নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা আহত পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা নিয়েছি। তার যাতে কোনো অসুবিধা না হয়, সে জন্য বিশেষ নজরদারি করেছি।’


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ