১৬ জানুয়ারি ২০২০, ১৭:০৯

এসএসসি-সমমান পরীক্ষায় বসবে সাড়ে ২০ লাখ শিক্ষার্থী

  © সংগৃহীত

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ১ ফেব্রুয়ারি। এবার ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিবে। আর পরীক্ষা চলাকালীন সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ কথা জানান। এবার মোট পরীক্ষার্থী কমেছে ৮৭ হাজার ৫৫৪ জন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে মাধ্যমিক ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে। এ জন্য আগামী ২৫ জানুয়ারি থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি সব কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। কেউ কোচিং সেন্টার খোলা রাখলে তাদের ‍বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এ বছর বাংলা দ্বিতীয়পত্র এবং ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয়পত্র ছাড়া সব বিষয়ে সৃজনশীল প্রশ্নে পরীক্ষা হবে। নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শারীরিক শিক্ষা, স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও খেলাধুলা এবং ক্যারিয়ার শিক্ষা বিষয়গুলো ধারাবাহিক মূল্যায়নের মাধ্যমে প্রাপ্ত নম্বর প্রতিষ্ঠানগুলো সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে সরবরাহ করবে। কেন্দ্র ওই নম্বর ব্যবহারিক নম্বরের সঙ্গে যোগ করে অনলাইনের মাধ্যমে বোর্ডে পাঠাবে।’

তিনি জানান, এবারও পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে সব শিক্ষার্থীকে কেন্দ্রে প্রবেশ করে নিজ নিজ আসনে বসতে হবে। পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে কেন্দ্র সচিবকে প্রশ্নের সেট কোড জানিয়ে দেওয়া হবে। পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোন বা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করা যাবে না। ছবি তোলা যায় না এমন মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন কেন্দ্র সচিব।

এবার ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে তত্ত্বীয় পরীক্ষা ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ২২ ফেব্রুয়ারি। ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ২৯ ফেব্রুয়ারি। আর কারিগরিতে ব্যবহারি পরীক্ষা ২৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ২৭ ফেব্রুয়ারি। আর মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের দাখিল তত্ত্বীয় পরীক্ষা১ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ২৫ ফেব্রুয়ারি। ব্যবহারিক পরীক্ষা ২৬ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ৩ মার্চ।

এবার মোট ২৮ হাজার ৮৮৪ টি শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানের তিন হাজার ৫১২টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২০২টি প্রতিষ্ঠান ও ১৫টি কেন্দ্র বেড়েছে। ২০১৯ সালে এসএসসিতে মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩ জন। এ হিসাবে এবার মোট পরীক্ষার্থী কমেছে ৮৭ হাজার ৫৫৪ জন।