আগামী বছর থেকে ষষ্ঠ শ্রেণীর সব খরচ দেবে সরকার

  © ফাইল ফটো

আগামী বছর থেকে ষষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের সব খরচ বহন করবে সরকার। এছাড়া পর্যায়ক্রমে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত ছাত্রছাত্রীরা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে পড়ার সুযোগ পাবেন। স্কুল-মাদ্রাসায় থাকবে না কোনো টিউশন ফি। এছাড়া উপবৃত্তির আওতা বাড়িয়ে ৬০ শতাংশ করা হবে। বর্তমানে একটি শ্রেণির ৪০ শতাংশ উপবৃত্তি দেওয়া হয়।

জানা গেছে, ২০২১ সাল থেকে সপ্তম শ্রেণিতেও এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হবে। পরে পর্যায়ক্রমে প্রতি বছর একটি শ্রেণি অবৈতনিক শিক্ষার অন্তর্ভুক্ত হবে। বর্তমানে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক লেখাপড়া করছে। তবে মাধ্যমিক স্তরে টিউশন ফি দিতে হচ্ছে।

এছাড়া বর্তমানে উপবৃত্তি পাওয়া শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১০ শতাংশ ছাত্র এবং বাকিরা ছাত্রী। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৫ শতাংশ ছাত্র এবং ৪৫ শতাংশ ছাত্রী উপবৃত্তি সুবিধা পাবে।  প্রাথমিক এই সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে আগামী ৬ অক্টোবর বৈঠক ডাকা হয়েছে। এতে সভাপতিত্ব করবেন সিনিয়র সচিব। এতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের ডাকা হয়েছে। 

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘প্রাথমিকের মতো মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে লেখাপড়া অবৈতনিক করতে চান প্রধানমন্ত্রী। শিক্ষায় টেকসই উন্নয়ন, ভিশন-২০৩০ এবং ২০৪১ অর্জনের লক্ষ্যে ঝরেপড়া রোধ এবং মান অর্জনই অবৈতনিক শিক্ষার প্রধান লক্ষ্য।’

তিনি বলেন, ‘এজন্য পর্যায়ক্রমে ষষ্ঠ থেকে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষা অবৈতনিক করতে চান প্রধানমন্ত্রী। এ লক্ষ্যেই প্রথম ধাপ হিসেবে আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই ষষ্ঠ শ্রেণির লেখাপড়া অবৈতনিক করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সরকারের মাধ্যমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির (এসইডিপি) আওতায়  অবৈতনিক মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। 

জানা গেছে, ষষ্ঠ শ্রেণিতে ১০০, সপ্তমে ১৫০ টাকা; অষ্টম শ্রেণি ২০০ টাকা; নবম ও দশম শ্রেণিতে যথাক্রমে ৩০০ ও ৫০০ টাকা করে টিউশন ফি দেয়ার চিন্তা করছে সরকার। এছাড়া একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণিতে ৫শ’ টাকা প্রস্তাবিত টিউশন ফি রাখা হয়েছে।

প্রাথমিক হিসেব অনুযায়ী, ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণিতে (তিন শ্রেণিতে) ২০২১ সালে ৮০ লাখ ৪৪ হাজার ৬৭৩ জন এবং ২০২৫ সালে ৯০ লাখ ৫৪ হাজার ৩৫০ জন লেখাপড়া করবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এছাড়া নবম-দশম শ্রেণিতে ২০২১ সালে শিক্ষার্থী হবে ৪৩ লাখ ৩৪ হাজার ১০৯ জন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ