স্কলারশিপে চীন যাচ্ছেন গ্রিন ইউনিভার্সিটির পাঁচ শিক্ষার্থী

স্কলারশীপ প্রাপ্ত ‍শিক্ষার্থীদের সাথে গ্রিন ইউনিভার্সিটির উপাচার্য  © সংগৃহীত

দ্বিপাক্ষিক শিক্ষা ও গবেষণা বিনিময় চুক্তির অংশ হিসেবে চাইনিজ গভর্নমেন্ট ও প্রেসিডেন্ট স্কলারশিপ-২০১৯ পেয়েছেন গ্রিন ইউনিভার্সিটি পাঁচ শিক্ষার্থী। শতভাগ স্কলারশিপ পাওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন- আইন বিভাগের এ এস এম সরওয়ার হোসেন, টেক্সটাইল বিভাগের মঞ্জুরুল আলম ও রকিকুল্লাহ ফায়াজী এবং ইইই বিভাগের অজয় কুমার হালদার ও জালাল আহমেদ। এদের মধ্যে প্রথম দুজন পিএইচডি ও বাকিরা মাস্টার্স প্রোগ্রামের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

এই পাঁচ শিক্ষার্থী  চায়না ইউনিভার্সিটি অব পলিটিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ল’, জোংনান ইউনিভার্সিটি অব ইকোনমিকস অ্যান্ড ল’, উহান টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটি এবং সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স টেক্সটাইলে পড়ার সুযোগ পাবেন।

গৌরবজ্জ্বল এ সাফল্যের কারণে বুধবার (২৮ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ড চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. সামদানী ফকির তাদের অভিনন্দন জানান এবং উত্তোরত্তর সাফল্য কামনা করেন।

তারা বলেন, এ ধরনের স্কলারপিশ পাওয়া নিঃসন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। যেহেতু চীনের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে গ্রিনের চুক্তি রয়েছে, তাই অন্য শিক্ষার্থীদেরও এই সুযোগ কাজে লাগানো উচিত। এর আগে একই স্কলারশিপে রাশেদুল ইসলাম ও মো. ইউসুফ হোসেন নামে দুই শিক্ষার্থী চীনে পড়তে যান।

প্রসঙ্গত, উচ্চশিক্ষা বিনিময়ের লক্ষ্যে চীনের শীর্ষ পর্যায়ের চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে গ্রিন ইউনিভার্সিটির সমঝোতা চুক্তি রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো- উহান টেক্সটাইল ইউনিভার্সিটি, হোবেই ইউনিভার্সিটি, চায়না থ্রি জর্জেস ইউনিভার্সিটি এবং হোবেই ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজি।

চুক্তি ছাড়াও ‘হোবেই সাউথ এশিয়ান ইউনিভার্সিটিস অ্যালায়েন্স’-এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ানো বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে গঠিত সংগঠনের সদস্যপদ পেয়েছে গ্রিন। যার আওতায় এই স্কলারশিপ ছাড়াও প্রশিক্ষণ, ক্রেডিট ট্রান্সফার ও যৌথ গবেষণা কার্যক্রমের সুযোগ পাচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীরা।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ