সকাল-সন্ধ্যা টিউশনি করেও জিপিএ-৫ পেল আমিনুল

সকাল ৫টায় ঘুম থেকে ওঠা। এরপর দুই ঘণ্টা চলতো পড়ালেখা। তারপর টিউশনি করতে বের হওয়া। এরপর কলেজ, কলেজ শেষ করে আবার টিউশনি। এভাবেই গত দুই বছর ধরে পড়ালেখা করে জিপিএ-৫ পেয়েছেন গরীব কৃষকের অদম্য মেধাবী ছেলে। বুধবার ফলাফল হাতে পেয়ে তাই আর চোখের জল ধরে রাখতে পারেনি সে।

বলছিলাম কক্সবাজার জেলার চকরিয়া থানার বহদ্দারকাটা এলাকার মেধাবী আমিনুল হকের কথা। ফলাফল ঘোষণার পর সবার আগে বাবাকে কল দিয়ে জানালেন তার কৃতিত্বের কথা। তখনো আমিনুলের চোখ দিয়ে পানি পড়ছিল। চলতি বছর চট্টগ্রাম কলেজে মানবিক বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছেন তিনি।

পরিবারের আর্থিক অনটনের কারণে তাকে চকরিয়ায় কোনো একটি কলেজে এইচএসসি পড়তে বলেছিলেন বাবা। বাবাকে তখন বলেছিলেন আমার পড়ালেখার খরচ নিয়ে তোমাকে ভাবতে হবেনা। এরপর ভর্তি হন চট্টগ্রাম কলেজে। কিছু পরিচিত বড় ভাইয়ের সহযোগিতায় দুটি টিউশনি পেয়ে যান তিনি। দুই বছর টিউশনির টাকায় নিজের খরচ ও পড়ালেখার খরচ যুগিয়েছেন। পাশাপাশি শিক্ষকদের সহযোগিতায় নিজে ভালো করে পড়ে জিপিএ-৫ পান আমিনুল হক।

আমিনুল হক বলেন, সকাল ৫টায় ঘুম থেকে উঠে যেতাম। টিউশনিতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত দুই ঘণ্টা পড়তাম। তারপর সন্ধ্যায় টিউশনি থেকে আসার পর রাত ১টা পর্যন্ত পড়ালেখা করেছি। পাশাপাশি শিক্ষকদের সহযোগিতার কারণে আমার এই ভালো ফলাফল। এখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন অনুষদে ভর্তি হয়ে বিচারক হয়ে দেশের মানুষের সেবা করতে চাই।

উল্লেখ্য, চলতি বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১৩ লাখ ৫৮ হাজার ৫০৫ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। গত ১ এপ্রিল থেকে লিখিত পরীক্ষা শুরু হয়ে শেষ হয় ১১ মে। ১২মে থেকে ব্যবহারিক পরীক্ষা শুরু হয়ে চলে ৩১মে পর্যন্ত। এবছর এইচএসসিতে সামগ্রিক পাশের হার ৭৩.৯৩ শতাংশ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৭ হাজার ২৮৬ জন পরীক্ষার্থী।


মন্তব্য