নিজের লেখা বই বিক্রির পয়সায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে চান নুসরাত

  © টিডিসি ফটো

করোনা মহামারীতে নিজের লেখা কাব্যগ্রন্থ ‘জীবন যেখানে যেমন’ বিক্রির টাকা নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে চান কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) শিক্ষার্থী নুসরাত রশিদ। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্রী।

নুসরাত রশিদ বলেন, আপনারা ইতিমধ্যে অবগত আছেন আমরা লেখা কাব্যগ্রন্থ ‘জীবন যেখানে যেমন’ ইতিমধ্যে ই-বুক তথা পিডিএফ আকারে প্রকাশিত হয়েছে। যে বইটিতে ফুটিয়ে তুলতে চেষ্টা করেছি জীবনের নানান বাস্তবতা। আমি বড় কোনো লেখক নই, একজন তরুণ লেখক নিয়মিত শিখছি এবং লেখার চেষ্টা করছি।

করোনায় মানুষের দুর্দশার কথা তুলে ধরে নুসরাত বলেন, সারাবিশ্বের ন্যায় আমাদের দেশেও করোনাভাইরাস দিনদিন আরও ভয়াবহতা দিকে এগুচ্ছে। ছিন্নমুল ও অসহায় মানুষদের সকলেই সহযোগিতা করেছে। কিন্তু আমাদের ভাবনা ছিল এত দিনে সব কিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে। স্বাভাবিক না হওয়ায় মানুষ আবার কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। আমি আপনি যদি সেসব মানুষদের মধ্য থেকে কতক মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে পারি তার চেয়ে ভালো কাজ আর হতে পারে না।

নুসরাতের লেখা বই

নিজের লেখা বই বিক্রির পয়সায় মানুষের পাশে দাড়াতে চান নুসরাত। তিনি বলেন, আমার এ সামান্য প্রচেষ্টায় যদি মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারি সেটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া হবে। আপনাদের কাছে অনুরোধ এ কাঁচা হাতের লেখকের বই পছন্দ না হলেও করোনায় অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানোর জন এগিয়ে আসুন। ৫০/১০০/১৫০ টাকার চেয়ে একজন মানুষের মুখের হাসি অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ।

নুসরাত বলেন, আমি কোনো নির্দিষ্ট কোনো মূল্য বলব না আপনারা আমাকে ভালোবেসে এবং করোনায় অসহায় হয়ে পড়া মানুষের পাশে দাড়াতে যা প্রদান করবেন সেটাতেই আমি খুশি। এ টাকা দিয়ে আমি নলেজ হান্টার মানবিক টিমের মাধ্যমে অন্তত ১০টা পরিবারের পাশে দাড়াব ইনশাআল্লাহ।

প্রসঙ্গত, এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমজাদ হোসেন হৃদয় নামে এক শিক্ষার্থীও নিজের লেখা বই বিক্রি করে ছিন্নমূল মানুষের পাশে দাড়িয়েছিলেন। নুসরাতের বই কিনতে অথবা এ বিষয়ে তার সঙ্গে কথা বলতে 01826708731 এ নম্বরে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ