চলে গেলেন রাবির সাবেক অধ্যাপক মজিবর রহমান

চলে গেলেন রাবির সাবেক অধ্যাপক মজিবর রহমান

একাত্তরের এক অনন্য অকুতোভয় যোদ্ধা, একুশে পদকপ্রাপ্ত, শহীদ বুদ্ধিজীবী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণিত বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক ড. মজিবর রহমান (দেবদাস) আর নেই ( ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্নইলাহি রাজিউন)। মৃুত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯০ বছর।

সোমবার (১৮ মে) বার্ধক্যজনিত কারণে জয়পুরহাটের তাঁর গ্রামে নিজ বাসভবনে মারা যান।

একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তিনি পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বর্বরতার বিরুদ্ধে সরকারের কাছে লিখিত প্রতিবাদ করেন। তিনি তাঁর প্রতিবাদপত্রে বলেছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয় আর জ্ঞান চর্চার আধার নয়, এটা মিলিটারি ক্যাম্পে পরিণত হয়েছে। ওই নরপশুরা যদি মানুষ হয়, তাহলে তাদের ও তাদের ধর্মকে আমি ঘৃণা করি। আজ থেকে নিজ নাম পরিবর্তন করে দেবদাস রাখছি। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস স্বঅবয়বে আবির্ভূত হলে ক্যাম্পাসে ফিরে আসবো।

তাঁর ওই প্রতিবাদ এবং অবস্থানে ক্ষিপ্ত হয়ে হানাদার বাহিনী তাঁকে ধরে নিয়ে যায়। তাঁকে নাটোরে নিয়ে গিয়ে নির্মমভাবে নির্যাতন করে। কয়েকমাস যাবত অমানুষিক শারীরিক নির্যাতনে এই শিক্ষাবিদের মানসিক বৈকল্য ঘটে। সেই থেকে তিনি আর কোনোদিন সুস্থ হতে পারেননি। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁকে ‘জীবন্ত শহীদ’ ডাকা হয়।

১৯৩০ সালের ১ জানুয়ারি জয়পুরহাট জেলায় জন্মগ্রহণ করেন ড. মজিবুর রহমান। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৫২ সালে গণিতে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে এমএ ডিগ্রি অর্জন করেন। তারপর করাচির সেন্ট্রাল সরকারি কলেজে যোগদানের মাধ্যমে তার অধ্যাপনা জীবনের শুরু।

১৯৬৪ সালে অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ইউনিভার্সিটি থেকে ফলিত গণিতে এমএসসি ডিগ্রি অর্জন করে করাচির নাজিমাবাদ কলেজে যোগ দেন। পরে তিনি ১৯৬৭ সালের ১৬ অক্টোবর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে গণিত বিভাগে সিনিয়র লেকচারার হিসেবে যোগদান করেন।

মুক্তিযুদ্ধে তার মহান ত্যাগের জন্য ২০১৫ সালে সরকার তাকে একুশে পদকে ভূষিত করেন। মুক্তিযুদ্ধের এই মহান, আত্মত্যাগী, শিক্ষাবিদের মৃত্যুতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও উপ-উপাচার্যদ্বয় গভীর শোক প্রকাশ ও তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

 


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ