অধ্যাপক মির্জা মফিজ উদ্দিন আর নেই

  © টিডিসি ফটো

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক মির্জা মফিজ উদ্দিন (৭৬) আর নেই (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেউন)। ১৪ মে রাত সোয়া ১ টায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহেদুর রশিদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ‘আমাদের অত্যন্ত প্রিয় শিক্ষক প্রফেসর মির্জা মফিজ উদ্দিন স্যার ১৪ মে রাত ১ টা ১৫ মিনিটে ইন্তেকাল করেছেন। তিনি বেশ কিছুদিন যাবত নানা ধরনের অসুখে ভুগছিলেন। সর্বশেষ ৭ মে মৃদু স্ট্রোক করেন। আজ সকাল সাড়ে ৭ টায় তাঁর মরদেহবাহী গাড়ি জাবি ক্যাম্পাস অতিক্রম করে এবং আজ বিকেলে তাঁকে দিনাজপুরের বিরলে প্রয়াত বাবা-মার পাশে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।’

তিনি আরও জানান, ‘পরিবার সূত্রে মতে- করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে হাসপাতালে গিয়েও যথাযথ চিকিৎসা নিতে পারছিলেন না। গত কয়েকদিন বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হলেও ডাক্তারের স্বল্পতার কারণে সুচিকিৎসা ব্যহত হয়। সর্বশেষ শ্যামলীর স্পেশালাইজড্ হসপিটালে তাঁকে নেয়া হলে সেখানেই তিনি মৃত্যুবরণ করেন।’

এদিকে অধ্যাপক মির্জা মফিজ উদ্দিনের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম। তিনি তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, ‘অধ্যাপক মির্জা মফিজ উদ্দিন এর প্রয়াণে জাতি একজন অভিজ্ঞ ভূগোলবিদকে হারালো। একজন আদর্শ ভূগোলবিদ এবং সজ্জন ব্যক্তি হিসেবে তিনি সর্বজনবিদিত ও সুপরিচিত ছিলেন। তার শিক্ষা, গবেষণা এবং প্রশাসনিক কাজ-কর্মে বিশ্ববিদ্যালয় ঋদ্ধ হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।’

প্রসঙ্গত, মৃত্তিকা ভূগোল, জিওমোরফোলোজি, ভৌগোলিক জরিপ ইত্যাদি কাজে অধ্যাপক মির্জা মফিজ উদ্দিনের দক্ষতা ছিল অপরিসীম। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ জাতীয় ভূগোল সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৭৫ সালে প্রভাষক পদে যোগদান করেন, দীর্ঘ ৩৫ বছর বর্ণাঢ্য কর্মজীবন শেষে ২০১০ সালে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগ থেকে অবসরগ্রহণ করেন। তিনি বিভাগীয় সভাপতি, প্রাধ্যক্ষ, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের নানা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ