আবাসিক হলে কোয়ারেন্টিনের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসল চবি

  © ফাইল ফটো

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলে কোয়ারেন্টিন স্থাপন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি উদ্বেগ প্রকাশ করায় হলটিকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন করার সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (২৫ মার্চ) দুপুরে হলটিকে কোয়ারেন্টিন না চেয়ে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেয় চবি শিক্ষক সমিতি। তারপরই নতুন এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির বিবৃতিতে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি উদ্বিগ্ন এবং শঙ্কিত। কারণ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এবং যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোলের সাম্প্রতিক কোয়ারেন্টিন বিষয়ক Infection Prevention and Control guidance for Long-Term Care Facilities in the context of COVID-19 নীতিমালায় সুস্পষ্ট ভাবে বলা আছে, কোয়ারেন্টিনের জন্য নির্ধারিত এলাকা হতে হবে জনবসতি থেকে দূরে এবং সুনির্দিষ্ট একটি দূরত্ব এক্ষেত্রে বজায় রাখতে হবে এবং আবাসস্থলে প্রতি রুমের সাথে সংযুক্ত শৌচাগার বা টয়লেট থাকতে হবে।

কিন্তু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উক্ত হলের খুব কম দূরত্বের মধ্যেই আশেপাশে শিক্ষক ও কর্মচারিদের বসতি আছে এবং হলের রুমগুলোতে সংযুক্ত টয়লেট নেই যা এর নীতিমালার ব্যতিক্রম।

দেশের পাশে দাঁড়ানো যেমন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রয়োজন তেমনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০ হাজার ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মচারি এই দেশেরই সম্পদ। তাদের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষার কথা চিন্তা করাটাও আমাদের নৈতিক ও পবিত্র দায়িত্ব। বিজ্ঞপ্তিতে এই সিদ্ধান্তটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০ হাজার মানুষের সুরক্ষায় বাতিল ও পুনঃবিবেচনার দাবি জানানো হয়।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার সরকারের উচ্চ পর্যায়ের আদেশে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণাধীন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলকে চট্টগ্রাম উত্তর জেলার প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য নির্ধারণ করা হয়। এরপর থেকেই বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে বসবাসকারী শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চিন্তিত দেখা গেছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ