নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ শিক্ষার্থীর বহিষ্কার আদেশ স্থগিত

  © ফাইল ফটো

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিংয়ের অভিযোগে বহিষ্কৃত ৫ শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়য়ের ঢাকাস্থ লিয়াজো অফিসে বেলা ১২টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

শনিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ ড. হুমায়ুন কবীর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বহিষ্কারাদেশ স্থগিতের পাশাপাশি আগামী দুই মাসের মধ্যে পুনরায় তদন্তের লক্ষ্যে উচ্চতর ক্ষমতাসম্পন্ন ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. হুমায়ুন কবীর জানান, শিক্ষার্থীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আরো উচ্চতর তদন্তের স্বার্থে কমিটিতে সিন্ডিকেট সদস্য ও ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. সুব্রত কুমার দেকে সভাপতি, প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধানকে সদস্য সচিব করে এবং কলা অনুষদের ডীন ও সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. মো. সাহাবউদ্দিন এবং সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক ড. এ কে এম জাকির হোসেনকে সদস্য করে নতুন তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এর আগে এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের এক জরুরী সিন্ডিকেট সভায় কম্পিউটার সাইন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ (সিএসই) বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ইমরানকে র‍্যাগিংয়ের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের ২য় বর্ষের দুই শিক্ষার্থী জাকির হোসেনকে ৩ বছর ও তানভিরুল ইসলামকে দুই বছর এবং ইইই বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী মেহেদি হাসানকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

অন্যদিকে নাট্যকলা ও পরিবেশনা বিদ্যা বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী লিয়োনাকে র‍্যাগ দেওয়ার অভিযোগে শায়রা তাসনিম আনিকা ও তোয়াবা নুসরাত মীমকে ১ বছর করে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তাদের বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার চেয়ে বিক্ষোভ করেছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তাদের অভিযোগ ছিল, প্রকৃত অপরাধীকে আড়াল করে নিরপরাধীদের বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।


মন্তব্য