ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ

দুই শিক্ষক প্রতিনিধির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে ঢাকা বোর্ড

  © ফাইল ফটো

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে অতিরিক্ত ছাত্রী ভর্তি করায় শিক্ষক ড. ফারহানা খানম এবং মুস্তারি সুলতানার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে অধ্যক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিয়ে পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে শিক্ষা বোর্ডকে অবহিত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোমিনুর রশিদ আমিন।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৯ সালে গভর্নিং বডি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটিতে নির্ধারিত আসন সংখ্যার অতিরিক্ত ৪৩৩ ছাত্রীকে ভর্তি করে। ওই অনিয়মের ঘটনায় এই দুই শিক্ষকের এমপিও স্থগিতসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার অনুমতি চায় মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। মন্ত্রণালয়ের অনুমতির পর গত বছর ৯ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ থেকে শিক্ষক ড. ফারহানা খানম এবং মুস্তারি সুলতানাকে শোকজ করা হয়। কেন তাদের বেতন-ভাতা বন্ধ করা হবে না তা জানতে চায় মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের এই আদেশের পর গত বছর ২৬ সেপ্টেম্বর মাউশির মহাপরিচালক মন্ত্রণালয়কে জানান, ‘ড. ফারহানা এবং মুস্তারি বেগম নন-এমপিও শিক্ষক। বেসরকারি শিক্ষকদের এমপিওবিহীন শিক্ষকদের বেতন-ভাতা গভর্নিং বডির সিদ্ধান্ত মোতাবেক পরিশোধ বা বন্ধ করা হয়। বিষয়টি সদয় বিবেচনার জন্য পাঠানো হলো।’

এই ঘটনায় ঢাকা শিক্ষা বোর্ড ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেয়। কিন্তু ওই সময়ের গভর্নিং বডি কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। দীর্ঘদিন পর ঢাকা শিক্ষা বোর্ড গত ২০ জানুয়ারি কলেজের অধ্যক্ষকে আইনানুগ ব্যবস্থা নিয়ে পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে অবহিত করার নির্দেশ দেয়।

ঢাকা মহানগরীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে ২০১৯ শিক্ষাবর্ষে আসন সংখ্যার অতিরিক্ত শিক্ষার্থী ভর্তি করায় শিক্ষক প্রতিনিধি ড. ফারহানা খানম এবং মুস্তারি সুলতানার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গভর্নিং বডিকে অনুরোধ জানানো হয়েছিল বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়। তবে গভর্নিং বডি কোনও ব্যবস্থা নেয়নি বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ