পুরোনো প্রশ্নে পরীক্ষা, শাস্তি পাচ্ছেন ইবির সেই দুই শিক্ষক

অবশেষে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সেই পরীক্ষাটি বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ। দেশ গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর বিভাগীয় একাডেমিক কমিটি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একই সঙ্গে পরীক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দুই শিক্ষককে শাস্তির আওতায় আনা হয়েছে।

শনিবার বিভাগের একাডেমিক কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোছা. ছালমা সুলতানা গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, ওই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট পরীক্ষা কমিটির সভাপতিকে অব্যাহতি দেয়া এয়ছে। এছাড়া আগামী এক বছরের জন্য তাকে পরীক্ষা সংক্রান্ত সব কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কোর্স শিক্ষককে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।

বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মোছা. ছালমা সুলতানা বলেন, বিভাগীয় কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরীক্ষাটি বাতিল করা হয়েছে। একইসঙ্গে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষা কমিটিও নতুনভাবে গঠন করা হয়েছে।

জানা গেছে, গত ১৩ নভেম্বর গণমাধ্যমে ‘ইবির ইংরেজি বিভাগে একই প্রশ্নপত্রে দুই শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষা’ শিরোনামে খবর প্রকাশিত হয়। গত ৯ নভেম্বর (২০১৬-১৭) শিক্ষাবর্ষের তৃতীয় বর্ষের ‘এলিজাবেথান অ্যান্ড জ্যাকোবিয়ান ড্রামা’ শীর্ষক ৩০৫ নম্বর কোর্সের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

পরীক্ষায় চলতি বছরের প্রশ্নপত্রের আটটি প্রশ্নের মধ্যে আগের বছরের ৬টি প্রশ্নের হুবহু মিল ছিল।গত বছরের প্রশ্নপত্রের সঙ্গে দুইটি নতুন প্রশ্ন সংযোজন করে এ পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়ে। এছাড়া প্রশ্নপত্রের ব্যাখ্যা অংশের ৬টি প্রশ্নের মধ্যে গত বছরের পাঁচটি প্রশ্নের মিল রয়েছে। এভাবে একই প্রশ্ন দিয়ে দুই শিক্ষাবর্ষের পরীক্ষা গ্রহণ করায় শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা।

এ নিয়ে শনিবার ইংরেজি বিভাগের একাডেমিক কমিটির সভায় অধিকাংশ শিক্ষকের মতামতের ভিত্তিতে পরীক্ষাটি বাতিলের সিদ্ধান্ত হয়। পরীক্ষা কমিটির সভাপতি সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আজগর হোসেনকে কমিটি থেকে অব্যাহতি দেয়ার পাশাপাশি এক বছরের জন্য পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কার্যক্রম থেকে বিরত থাকতে বলা হয়।

এছাড়া ৩০৫ নম্বর কোর্সের শিক্ষক সহকারী অধ্যাপক সাজ্জাদ হোসেন জাহিদকে দুই বছরের জন্য কোর্সটির ক্লাস নেওয়ার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ