চবিতে ভর্তিচ্ছু ছাত্রীকে ঘুষি ছাত্রলীগকর্মীর

  © টিডিসি ফটো

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) এক ভর্তিচ্ছু ছাত্রীকে ঘুষি মেরেছেন শাখা ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক রাজনীতির দুই কর্মী । বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তাকর্মী শিমুল দে’কে মারধরের এক পর্যায়ে ওই ছাত্রীকে লাঞ্চিত করেন ছাত্রলীগের অভিযুক্ত কর্মীরা। এর আগেও বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য বহিষ্কার হয়েছিলেন অভিযুক্তরা।

 সোমবার (২৮ অক্টোবর) দুপুর একটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহজালাল হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরকারী দুই ছাত্রলীগরা কর্মী হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র লোকমান হোসেন লোটাস ও একই বর্ষের ভাষা বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র কনক সাহা জয়। এ ছাড়া দুজনই চবি শাখা ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক গ্রুপ ‘একাকার’ এর কর্মী এবং শাখা ছাত্রলীগের নেতা ইমাম উদ্দিন ফয়সাল পারভেজের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

অভিযুক্ত দুই ছাত্রলীগ কর্মীই ২০১৮ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর কার্যালয়ে ভাঙচুরের ঘটনায় দুই বছরের জন্য বহিষ্কৃত হয়েছিলেন। এর আগেও এক ঘটনায় ছয় মাসের জন্য বহিষ্কার হয়েছিলেন।

সূত্রে জানা যায়, সোমবার দুপুরের দিকে নির্দিষ্ট জায়গায় গাড়ি রাখতে বলায় ভর্তি পরীক্ষায় শাহ জালাল হলের সামনে দায়িত্বে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তাকর্মী কনক দেকে মারধর করতে থাকে লোকমান ও জয়। এ সময় ভর্তি পরীক্ষা শেষে ফেরার পথে মারধরকারীদের একজনের ঘুষি লাগে ভর্তিচ্ছু এক ছাত্রীর মাথায়। এতে ওই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টার পাঠানো হয়। পরে দায়িত্বে থাকা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন ছাত্রলীগকর্মী লোকমান ও কনক পুলিশ বক্সে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগ নেতা ইমাম উদ্দিন ফয়সাল পারভেজ বলেন, ওই নিরাপত্তাকর্মী তাদের (লোকমান ও জয়) সঙ্গে খারাপ আচরণ করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কেন এ ধরনের আচরণ করছেন, জানতে চাইলে সে (নিরাপত্তাকর্মী কনক) আরো বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। তাই লোকমান ও জয় প্রতিবাদ করে। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর স্যারদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সমাধানও করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন, আমি এ ঘটনা শুনেছি। গাড়ি পার্কিংয়ের বিষয়ে কথা-কাটাকাটির জেরে ঘটনাটি ঘটেছে। জেলা পুলিশ এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ