বশেমুরবিপ্রবি সাংবাদিক বহিষ্কারে যবিপ্রবিসাসের নিন্দা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ইংরেজি দৈনিক দ্যা ডেইলি সান এবং দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাস বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি ও বশেমুরবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সদস্য ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে সুনির্দিষ্ট কারণ না দেখিয়ে বহিষ্কারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে যবিপ্রবি কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (যবিপ্রবিসাস)।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সাংবাদিক সমিতির সভাপতি রাসেল আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মোসাব্বির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক যৌথ বিবৃতিতে এমন কঠোর হুশিয়ারি, নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে অতি দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাঁর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার না করা হলে দেশের সব ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের নিয়ে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারির কথা বলা হয়েছে ।

বশেমুরবিপ্রবি সূত্রে জানা যায়, গত ২২ আগস্ট সংবাদের বক্তব্য সংগ্রহের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিনের কার্যালয়ে যান জিনিয়া। এ সময় উপাচার্য ওই প্রতিবেদকের দেয়া স্ট্যাটাসের কারণ জানতে চান। প্রতিবেদক কারণ উল্লেখ করলে উপাচার্য তাঁর প্রতি ক্ষিপ্ত হন এবং তাঁর সাথে অসদাচরণ এবং অকথ্য ভাষায় গালাগালি করতে থাকেন। তারই ফলস্বরূপ গত ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার স্বাক্ষরিত এক আদেশে প্রতিবেদকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে গণমাধ্যমকর্মীরা বহিষ্কারের কারণ জানতে চাইলে সুনির্দিষ্ট কারণ ব্যাখ্যা দিতে পারে নি।

যবিপ্রবিসাসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বশেমুরবিপ্রবি প্রশাসনের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ড স্বাধীন গণমাধ্যম ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার পরিপন্থী। সম্প্রতি বশেমুরবিপ্রবি প্রশাসনের দ্বারা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকরা নির্যাতিত হয়ে আসছে যা কোনভাবেই কাম্য নয়। অবিলম্বে ফাতেমা তুজ জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের মত প্রকাশের উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করারও আহবান জানান সাংবাদিক নেতারা।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ