স্বাধীন কাশ্মীরের দাবীতে ববিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

স্বাধীন কাশ্মীরের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) সাধারণ শিক্ষার্থীরা। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের সামনে ঢাকা-পটুয়াখালি মহাসড়কে এ মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা স্বাধীন কাশ্মীরের দাবি জানান। তারা বলেন, আমরা কাশ্মীরকে ভারতের অংশও নয়, পাকিস্তানের অংশ চাই না। আমরা চাই কাশ্মীরে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হোক।

মানববন্ধনে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তিমু মুজাহিদ বলেন, কাশ্মীরের সংকট শুধু কাশ্মীরের সংকটই নয়। এটা পুরো দক্ষিণ এশিয়ার সংকট। আজ কাশ্মীরের স্বাধীনতা অরক্ষিত হলে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশগুলোর স্বাধীনতা অরক্ষিত হবে। তাই আমরা চাই কাশ্মীরে ভারতীয় আগ্রাসন বন্ধ হোক।

লোক প্রশাসন বিভাগে শিক্ষার্থী হাফিজুর রহমান বলেন, মোদি সরকারের নির্বাচনী ইস্তেহারের ভেতরে কাশ্মীর সংক্রান্ত ৩৭০ ও ৩৫ অনুচ্ছেদ বাতিল এবং জাতীয় নাগরিক নিবন্ধন (এনআরসি) বাতিলের মাধ্যমে আসামের বাঙ্গালী মুসলিমদের বাদ দেবার কথা উল্লেখ করেছিল। এনআরসি বাতিল হলে এই ৪০ লাখ মুসলিম বাংলাদেশি হিসেবে বিবেচিত হবে। যা আমাদের জন্য হুমকি স্বরূপ। এসব বিবেচনায় আমরা কাশ্মীরের চেয়েও বেশি উদ্বিগ্ন। আমাদের ধর্মীয় সম্প্রতি রক্ষায় কাশ্মীরের সমাধান হওয়া দরকার।

সমাজবিজ্ঞানের শিক্ষার্থী আলীম সালেহী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছেন দুই শ্রেণীর মানুষ আছে। শাসক ও শোষিত। আমরা শোষিত নির্যাতিত মানুষের পক্ষে। কাশ্মীরে মানুষ আজ শোষিত। তাই আমরা আজ কাশ্মীরের স্বাধীনতার পক্ষে।

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন- মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী লোকমান হোসেন, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী শফিকুল ইসলাম, আল আমীন, আবু বকর সিদ্দিক শোয়েব, বাহাউদ্দিন আবীরসহ প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বেড় করে। মিছিলটি ভোলা রাস্তার মোড়ঘুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের নিচে এসে শেষ হয়। এসময় তাঁরা কাশ্মীরের স্বাধীনতার পক্ষে বিভিন্ন স্লোগান দেন।

উল্লেখ্য, গত ৫ আগস্ট সোমবার ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ, যেটা কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেয়, তা বিলোপ করার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। ফলে প্রতিবাদে ফুঁসছে মুসলিম বিশ্ব।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ