টিউশনির টাকায় শিক্ষার্থীকে বই কিনে দিলেন ছাত্রলীগ নেতা

পেশায় একজন সেলুনের নাপিত। বর্তমানে ফুলবাড়ি সরকারি কলেজের ডিগ্রি ১ম বর্ষের (বিএসএস) ছাত্র। তার পিতা একজন কৃষক ও মা গৃহিনী। অভাবের সংসার। দিন আনে দিন খায় তারা। ঠিক মতো খাবার জোটে না। পাঠ্যবই কেনা তো স্বপ্নের ব্যাপার। বলছি দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের নাপিতপাড়া গ্রামেv উজ্জ্বল চন্দ্রের কথা (১৯)।

পড়ার বইয়ের অভাবে ঠিকমতো পড়ালেখা করতে পারছিল না সে। মেধাবী শিক্ষার্থী হওয়া স্বত্বেও বইয়ের অভাব তাকে পড়ালেখা থেকে দুরে ঠেলে দিচ্ছিল। হঠাৎ বিষয়টি নজরে আসে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিনাজপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি সুমিত শীলের। সুমিত শীল একসেট বই কিনেন তার টিউশনির অর্থ দিয়ে। গত মঙ্গলবার সকালে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠুন চৌধুরী ও সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন চৌধুরীকে সঙ্গে নিয়ে উজ্জ্বল চন্দ্রের হাতে বই তুলে দেন ছাত্রলীগের এই নেতা।

উজ্জ্বল চন্দ্র বলেন, অর্থের অভাবে অনেক ছোট থেকেই সেলুনে কাজ করি। বিভিন্নভাবে সহযোগিতা পেয়ে বর্তমানে ডিগ্রিতে পড়ালেখা করছি। কিন্তু পাঠ্যবইয়ের অভাবে পড়ালেখায় অন্যদের থেকে পিছিয়ে পড়েছি। জেলা ছাত্রলীগের সুমিত দাদার কষ্টের টিউশনির অর্থে বই কিনে আমার হাত তুলে দেন। সুমিত দাদাসহ বাংলাদেশ ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠুন চৌধুরী বলেন, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সুমিত শীল টিউশনির অর্থ দিয়ে উজ্জ্বল চন্দ্রকে পাঠ্যবই কিনে দিয়ে মানবতার পরিচয় দিয়েছেন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রত্যেক নেতাই এমনি মহতকাজে নিজেদের নিবেদিত করবেন এই প্রত্যাশা করছি।

জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সুমিত শীল বলেন, অভাব-অনটনের পরিবারের জন্ম উজ্জ্বল চন্দ্র পাঠ্যবইয়ের অভাবে লেখাপড়া থেকে দুরে। কোন শিক্ষার্থী যেন ঝড়ে না পড়া সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছে ছাত্রলীগ। তারই ধারাবাহিকতায় উজ্জ্বল চন্দ্রের হাতে পাঠ্যবই তুলে দেওয়া হল।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ