ভিসা জটিলতায় নাসায় যাওয়া অনিশ্চিত সাস্ট অলিকের

ভিসা প্রত্যাখ্যান হওয়ায় নাসায় যাওয়া অনেকটা অনিশ্চিয়তার মুখে পরেছে নাসা ‘স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ’১৮ চ্যাম্পিয়ন সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (সাস্ট) টিম ‘অলিক’। শুক্রবার টিম অলিক এর মেন্টর শাবিপ্রবির সিএসই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, চলতি বছরের ২১ জুন নাসা থেকে টিম অলিককে আমন্ত্রণপত্র দেওয়া হয়। তারই প্রেক্ষিতে গত ১ জুলাই আমরা ভিসার জন্য আবেদন করি। ১১ জুলাই ভিসার জন্য ইন্টারভিউ দেওয়া হলেও আমেরিকান দূতাবাস থেকে ভিসা আবেদন প্রত্যাখ্যান করে দেওয়া হয়। এতে কারণ হিসেবে আই এন এর ২১৪(বি) ধারায় ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হয় বলে উল্লেখ করা হয়।

তিনি আরও জানান, ২১ থেকে ২৩ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় নাসা কেনেডি স্পেস সেন্টারে তাদের ইভেন্ট হওয়ার কথা। বিমানের টিকিট এবং হোটেল বুকিং দেওয়া হয়েছে। আইসিটি মন্ত্রণালয় তাদের সকল খরচ বহন করছে। টিম অলিকের ৫জনের সাথে আইসিটি মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পদস্থ ৬জন কর্মকর্তা, বেসিসের ৫জনসহ মোট ১৬জন সদস্যের একইসাথে নাসায় যাওয়ার আমন্ত্রণপত্র থাকা সত্ত্বেও টিম অলিক এর মেম্বার, মেন্টর, বেসিস এর মেম্বার সহ মোট ৮ জনের ভিসা প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ এর লোকাল অর্গানাইজার (বেসিস) আইসিটি ডিভিশন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ইউএস এম্বাসেডর এর সাথে যোগাযোগ করেছে।

বিষয়টি হতাশাজনক উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ ধরনের একটি বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে নাসা থেকে আমন্ত্রণ পাওয়া বাংলাদেশের জন্য একটি গৌরবের ব্যাপার। কিন্তু ভিসা সংক্রান্ত এ ধরনের জটিলতা ভবিষ্যতের তরুণ প্রতিযোগিতার বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করবে।

উলে­খ্য, লুনার ভি আর প্রজেক্ট যা মূলত একটি ভার্চুয়াল রিয়েলিটি অ্যাপ্লিকেশন এবং এই অ্যাপ্লিকেশন তৈরির মাধ্যমে বেস্ট ইউজ অব ডেটা ক্যাটাগরিতে ক্যালিফোর্নিয়া, কুয়ালালামপুর আর জাপানকে পেছনে ফেলে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে শাবিপ্রবির টিম অলিক। অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে যে কেউ চাঁদে না গিয়েও চাঁদে ভ্রমণের একটি অভিজ্ঞতা পাবেন।


মন্তব্য