ইসলাম ও নবীকে নিয়ে কটুক্তি, কুবি শিক্ষার্থীকে থানায় সোপর্দ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ইসলাম ধর্ম ও মহানবীকে (স.) নিয়ে কটুক্তি করার অভিযোগ উঠেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের জয়দেব নামে এক শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে। শনিবার (১৮ মে) যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ‘ভয়েস অব আমেরিকা’র ফেসবুক পেইজের একটি ভিডিও বার্তায় ধর্ম এবং মহানবীকে নিয়ে কটুক্তি করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থী।

এঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা এবং কর্মচারীরা। পরে ঐ শিক্ষার্থীকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এদিকে অভিযুক্ত জয়দেবের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে আজ রোববার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এসময় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানায় তারা।

জানা যায়, শনিবার (১৮ মে) যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ‘ভয়েস অব আমেরিকা’র ফেসবুক পেইজের একটি ভিডিও বার্তায় ইসলাম ধর্ম এবং মহানবীকে (স.) নিয়ে বিরুপ মন্তব্য করেন জয়দেব। পরবর্তীতে ধর্মীয় বিদ্বেষপূর্ণ এই মন্তব্য স্ক্রিনশটের মাধ্যমে ফেসবুকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গ্রুপে ছড়িয়ে পড়লে সেটা তাদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করে।

পরে জয়দেব সেটি মুছে ফেলেন এবং এরকম মন্তব্যের পুনরাবৃত্তি হবে না বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফেসবুক গ্রুপে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। তবে শিক্ষার্থীরা তাকে ক্ষমা না করে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে মামলা ও প্রশাসনিক শাস্তির দাবি জানান। রোববার সকালে শিক্ষার্থী এবং স্থানীয়রা জয়কে ঠাকুরপাড়ার একটি মেস থেকে আটক করে কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানায় সোপর্দ করে।

অভিজিৎ বণিক নামে এক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রুপে তার স্টাটাসে বলেন, ‘যে অন্যের ধর্মকে শ্রদ্ধা করতে পারে না, সে কখনো নিজের ধর্মকেও শ্রদ্ধা করতে পারে না। আপনি নাস্তিকের থেকেও কোনো অংশে কম নয়। এরকম তুচ্ছ মন্তব্য করে নিজের ধর্মের মানুষদের ফেলেছেন অস্বস্তিকর অবস্থায়। তীব্র নিন্দা জানাই এবং শাস্তির দাবি জানাই।’

বিশ্বিবিদ্যালয়ের তৃতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ইমতিয়াজ শাহরিয়া বলেন, ‘কুবির প্রশাসনের নিকট আবেদন অতি শিগগির আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানবকে নিয়ে এত বড় কথা? একজন মুসলমান হিসেবে, একজন জ্ঞানী মানুষ, একজন বিধর্মী কেউই সহ্য করব না। বিচার করেন।’

এদিকে জয়দেবের বিরুদ্ধে এর আগেও বিভিন্ন সময়ে ইসলাম বিদ্বেষী ভিডিও শেয়ার ও তার ফেসবুক বন্ধুদের মেসেঞ্জারে পাঠানোরও অভিযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত জয়দেব চন্দ্র শীল বলেন, ‘আমি ঐ গ্রুপটিতে যারা কমেন্ট করেছে তাদের উদ্দেশ্য এটি কমেন্ট করেছিলাম। পরে আমার ভুল বুঝতে পেরে আমি সেটা মুছে দেই। এজন্য সবার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছি।’

কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মো. ইমাম হোসেন বলেন, ‘জয়দেবকে কুমিল্লার ঠাকুরপাড়ার একটি মেস থেকে আমরা আটক করি। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তার নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন জানান, ‘আমি বিষয়টি শুনেছি। এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান আইনে ব্যবস্থা নেব। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আপাতত মামলা করার কোনো পদক্ষেপ নেই।’


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ