পুরো বেতন দিল মাত্র ২৬ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

করোনা সংকটের সময় মাত্র ২৬টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের গত মার্চ মাস ও এপ্রিল মাসের পুরো বেতন পরিশোধ করেছে। যদিও দেশে ইউজিসির অনুমোদন রয়েছে এমন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ১০৫টি। গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণার পর থেকে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি আদায় এবং শিক্ষকদের বেতন নিয়ে অসন্তুষ বিরাজ করছে বেশিরভাগ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে।

এর মধ্যে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় করোনার বিপর্যয় ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ৩০ থেকে ৫০ শতাংশ বেতন পরিশোধ করলেও অধিকাংশ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় এখনো কাউকে বেতন দেয়নি। এদিকে বৈশ্বিক মহামারি করোনার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম সচল রাখতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মালিকরা সরকারের কাছে ঋণ চেয়েছে বলে জানিয়েছেন ইউজিসি চেয়ারম্যান।

নিজেদের শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গত দুই মাসের বেতন পুরো পরিশোধ করেছে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি। বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা উপাচার্য ও বর্তমান প্রধান উপদেষ্টা মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন বলেন, ‘শিক্ষক এবং কর্মকর্তারা আমাদের সম্পদ। আমরা সবসময়ই মাসের প্রথম দিনে বেতন পরিশোধ করে দেই। গত দুই মাসেও কোনো ধরণের কারণ না দেখিয়ে আমরা ঠিকভাবে বেতন পরিশোধ করেছি।’

ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টসের শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও পুরো বেতন পেয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক কাজী মাহমুদুর রহমান বলেন, বরাবরের মতোই মাসের শেষদিন গত এপ্রিলের বেতন পেয়েছেন তারা। তিনি বলেন, নিয়মিত বেতন আমাদের দায়িত্বগুলো সঠিকভাবে পালনের ব্যাপারে আমাদের উৎসাহিত করে।

এদিকে ঈদ বোনাসসহ শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের গত মাসের বেতন পরিশোধ করে দিয়েছে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। উপাচার্য অধ্যাপক ড. চৌধুরী মফিজুর রহমান এটি নিশ্চিত করে বলেন, আমরা আমাদের শিক্ষক ও স্টাফদের গত ১১ মে ঈদ বোনাস দেই। আমাদের শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের খুশি রাখা আমাদের দায়িত্ব।’

তিন আরও বলেন, ‘আমাদের সেভিংস থেকে আর অল্প কয়েক মাস বেতন দিতে পারবো। কিন্তু মহামারির এই সংকট আরও দীর্ঘ হলে আমরাও সমস্যার সম্মুখীন হবো।

এছাড়া ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি, ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, নটর ডেম ইউনিভার্সিটি, ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি এবং ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজি, বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি, মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, বিজিসি ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি এন্ড সায়েন্সেস, ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি, চট্টগ্রাম, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী, কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন পরিশোধ করেছে।

এ তালিকায় আরও রয়েছে- আহসানুল্লাহ ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি, নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি, বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অফ ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি, গণ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি, এক্সিম ব্যাংক এগ্রিকালচারাল ইউনিভার্সিটি, চাপাইনবাবগঞ্জ, শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব বিশবিদ্যালয়, জামালপুর এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক।

এর আগে গত ৭ মে চলমান করোনা সংকটে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়কে ২৩ নির্দেশনা দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জু্রি কমিশন (ইউজিসি)। এ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতাদি পূর্বের ন্যায় নিয়মিভাবে পরিশােধ করতে নির্দেশ দেয় ইউজিসি।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক কাজী শহিদুল্লাহ বলেন, সঠিক সময়ে বেতন পরিশোধের জন্য সবগুলো বিশ্ববিদ্যলয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, মহামারির সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম সচল রাখতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মালিকরা সরকারের কাছে ঋণ চেয়েছে। তিনি বলেন, আমি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে সেই চিঠি পাঠিয়েছি। এখন তারাই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে।’


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ