সাফল্যের ২৫ বছরে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

  © টিডিসি ফটো

সাফল্য আর ঐতিহ্যের ২৪ বছর পেরিয়ে আজ ২৫ বছরে পা দিল ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। মানবিক মূল্যবোধে বিকশিত আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত পরিপূর্ণ মানুষ গড়ে তোলাই অন্যতম লক্ষ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে এই প্রতিষ্ঠান। ১৯৯৫ সালে রোপণ করা বীজটি আজ বিশাল মহিরুহে পরিণত হয়েছে।

১৯৯৫ সালের ৭ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ও চেয়ারম্যান মরহুম অধ্যাপক ড. এবিএম মফিজুল ইসলাম পাটোয়ারী। তিনি বাংলাদেশের একজন প্রথিতযশা আইনের লেখক ও মানবাধিকার বিজ্ঞানী ছিলেন। অধ্যাপক ড. পাটোয়ারী তার জীবদ্দশায় ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিসহ রংপুর ও গাইবান্ধা জেলাতে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন ।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এদেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে অন্যতম শীর্ষস্থানীয় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। বর্তমানে শতাধিক বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে মাত্র হাতেগোনা কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় তাদের স্থায়ী ক্যাম্পাস স্থাপন করতে পেরেছে। তার মধ্যে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অন্যতম।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ক্যাম্পাস এক একরের অধিক জায়গার উপর অবস্থিত। বর্তমানে স্থায়ী ক্যাম্পাসে চারটি ডিপার্টমেন্টের একাডেমিক কার্যক্রম চলছে। বিভাগগুলোর মধ্যে ইংরেজি, সমাজবিজ্ঞান, ফার্মেসি ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং অন্যতম। স্থায়ী ক্যাম্পাসে সবুজে ঘেরা এক মনোরম পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে।

বর্তমান বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপি এবং ভাইস চেয়ারম্যান ডাক্তার শহীদুল কাদির পাটোয়ারীর দক্ষতায় এগিয়ে চলেছে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। এছাড়া ট্রাস্টি বোর্ডের অন্যতম সদস্য এ্যাডভোকেট শাহেদ কামাল পাটোয়ারী বিশ্ববিদ্যালয়টির উন্নয়নে ভূমিকা রাখছেন।

এছাড়াও প্রতিষ্ঠাতার সহ-ধর্মীনি প্রয়াত এ্যাডভোকেট রোকেয়া ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাকালীন সময় ভূমিকা রাখেন।

এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে কর্মরত আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক ও চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কে এম মহসীন এবং ট্রেজারার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ও চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মইনুল ইসলাম।

বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের চারটি অনুষদের অধীনে নয়টি বিভাগের কার্যক্রম সূচারুরূপে পরিচালিত হচ্ছে। প্রথম থেকে ষষ্ঠ কনভোকেশন পর্যন্ত প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থী পাশ করে বেরিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টি থেকে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৬ হাজারের অধিক শিক্ষার্থী রয়েছে।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে পাশ করা গ্রাজুয়েটরা দেশ-বিদেশের বিভিন্ন নামকরা অর্গানাইজেশনে সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। এ ইউনিভার্সিটির পাশকৃত গ্র্যাজুয়েটরা এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য অংশ হিসেবে বিসিএসের বিভিন্ন ক্যাডারে কর্মরত রয়েছেন।

একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ঢাকা ইউনিভার্সিটির অভিজ্ঞ শিক্ষকেরা ছাত্র-ছাত্রীদেরকে যোগ্য নাগরিক হিসেবে তৈরি করছেন। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্র-ছাত্রীরা শুধু একাডেমিক কার্যক্রমে নিজেদের মেধাকে সীমাবদ্ধ রাখেননি।

বছরের বিভিন্ন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ফুটবল, ক্রিকেট টুর্নামেন্ট, কম্পিউটার প্রোগ্রামিং কম্পিটিশন, ইনডোর গেমস, ইন্টার্নেশনাল টুর, ন্যাশনাল টুরের আয়োজন করছেন। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং ক্লাব ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছেন। ট্রাস্টি বোর্ডের বর্তমান চেয়ারম্যান শামীম হায়দার পাটোয়ারী এমপির পৃষ্ঠপোষকতায় ক্লাবটিতে বেশ কয়েকজন আন্তর্জাতিক মানের বিতার্কিক তৈরি হয়েছে।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বনানী, গ্রীন রোড এবং পার্মানেন্ট ক্যাম্পাস সাতারকুল বাড্ডাসহ তিনটি লাইব্রেরীতে প্রায় ৫০ হাজারের অধিক বই রয়েছে। বছরে দু’বার জার্নাল অব ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি প্রকাশিত হয়। তাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ তাদের গবেষণামূলক আর্টিকেল প্রকাশ করে থাকেন।

প্রতিষ্ঠাতার স্বপ্ন ছিল ঢাকা ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে একটি বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলার। এদেশের নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা যেনো উচ্চশিক্ষার সুযোগ পায় সেজন্য প্রতিষ্ঠাতা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। রজতজয়ন্তীতে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাকে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছে। অল্প কয়েকদিনের মধ্যেই ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি আয়োজন করতে যাচ্ছে সপ্তম কনভোকেশন।

বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিভাগে পড়াশোনা করছেন। বর্তমানে বিদেশি ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা প্রায় চার শতাধিক। উন্নত মানের শিক্ষা এবং দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক গড়ে তোলার আত্মপ্রত্যয় ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সকল শিক্ষক কর্মকর্তা কর্মচারীসহ সকল ছাত্র-ছাত্রী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ড. এ বি এম মফিজুল ইসলাম পাটোয়ারী তার জীবদ্দশায় ২০টির অধিক বই এবং শতাধিক গবেষণামূলক আর্টিকেল প্রকাশ করেছেন। এছাড়াও তিনি হিউম্যানিস্ট এন্ড ইথিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ নামে একটি এনজিও প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মুজিববর্ষ উপলক্ষে এ বছর মুজিব আইটি কার্নিভাল আয়োজন করেছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ