দিল্লিতে হামলার প্রতিবাদে ঢাবিতে বিক্ষোভের ডাক

  © সংগৃহীত

ভারতে মোদী সরকারের ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট এবং দিল্লীতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) নিয়ে আন্দোলনরকারীদের উপরে সহিংস হামলা ও হয়রানির অভিযোগে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করবে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

আজ বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম-আহবয়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে এ কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ভারতে নরেন্দ্র মোদী সরকার আসার পর থেকে ধর্মীয় সম্প্রীতি বিনষ্ট করার চেষ্টা চলছে। আর এর প্রতিবাদ করায় শিক্ষার্থীসহ অনেক সাধারণ মানুষকে নির্যাতন করা হচ্ছে। আমরা নির্যাতিতদের পাশে দাঁড়াতে এবং সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে এ সমাবেশের আয়োজন করছি।

ভারতের রাজধানী দিল্লিতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মৃত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে ১৮–তে পৌঁছেছে। আইনটির বিরোধী ও সমর্থক দুই পক্ষের মধ্যে পাথর নিক্ষেপ, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের মধ্য দিয়ে ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে উত্তাল উত্তর-পূর্ব দিল্লি। সংঘর্ষে ১৫০ জনের বেশি মানুষ আহত। মঙ্গলবার শুরু হওয়া এই সহিংসতা আজ বুধবার সকালেও চলছে।

আজ এনডিটিভির অনলাইন সংস্করণে বলা হয়, ঘটনাস্থলে পুলিশ ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে। গতকাল রাতে দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। ঘটনাস্থলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি পরিদর্শনে যান অজিত। সিলামপুর, জাফরাবাদ, মৌজপুর ও গোকুলপুরি চক পরিদর্শন করেন তিনি। রাজধানীতে সংঘটিত সহিংসতার বিষয়ে আলোচনার জন্য নিরাপত্তাসংক্রান্ত মন্ত্রিপরিষদ কমিটি আজ বৈঠকে বসবে। দোভাল পরিস্থিতি নিয়ে কমিটির কাছে তথ্য তুলে ধরবেন।

গতকাল রাতে মূলত জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় (জেএনইউ) ও জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার শিক্ষার্থীরা বড় আকারে সমবেত হয় দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বাসভবনের সামনে। সহিংসতার নেপথ্যে জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি জানায় তারা। দিবাগত রাত সাড়ে তিনটায় পুলিশ জলকামানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে।

সংঘর্ষের দিন রাস্তায় লাঠিসোঁটায় সজ্জিত লোকেদের দেখা যায়। পুড়িয়ে দেওয়া হয় বিভিন্ন দোকান। সংঘাত সামাল দিতে সেনাবাহিনীকে নিয়োগ করার আরজি খারিজ করে দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

গতকালই ভারত সফরে এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন প্রেসিডেন্টের সফরের মধ্যেই দিল্লিতে এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হলো। গতকাল প্রায় সারা দিনই উত্তর-পূর্ব দিল্লির একাধিক জায়গায় একের পর এক সংঘর্ষ ঘটতে থাকে। আহত ব্যক্তিদের অনেকে পুলিশ সদস্য। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোতায়েন রয়েছে ৩৫ কোম্পানি আধা সেনা। কালকের ঘটনার পরই উত্তর-পূর্ব দিল্লির বেশ কয়েকটি এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ