ছাত্রী ধর্ষণের ভিডিও ধারণ: বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থী বহিষ্কার

ছাত্রী ধর্ষণের ভিডিও ধারণ: বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থী বহিষ্কার
  © লোগো

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় বেসরকারি বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সাময়িক বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হচ্ছে-বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও মানবাধিকার বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের ছাত্র বায়েজিদ আহমেদ প্লাবন ও ইকতিয়ার রহমান রাফসান, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ৭ম সেমিস্টারের ছাত্র তারেক মাহমুদ জয়।

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. মো. মহিউদ্দীনের স্বাক্ষর করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রাবির ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত মাহফুজুর রহমান শারদের তিন সহযোগী বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থী। যাদের বিরুদ্ধে মামলা বিচারাধীন। এর সত্যতা যাচাইয়ে বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে। কমিটি ওই ঘটনার সঙ্গে তিনজনের যুক্ত থাকার বিষয়টি সাময়িকভাবে নিশ্চিত করেছেন।

গত ২৪ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৮টার দিকে কাজলা সাঁকপাড়ায় এক ভাড়া বাসায় (মেস) রাজশাহী  বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান সারুদ তার পরিচিত এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, গল্প করার কথা বলে ডেকে নিয়ে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। মাহফুজুরের বন্ধু বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যায়ের আইনের ছাত্র প্লাবন, রাফসান, জয় এবং কাজলার স্থানীয় জীবন ও বিশাল মোবাইলে ওই ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করেন।

এ ঘটনার পর ভুক্তভোগী ছাত্রীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন এবং টাকা না দিলে ভিডিও  ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকিও দেন তারা।

২৭ জানুয়ারি দুপুরে ওই ছাত্রী তার মা-বাবাসহ মতিহার থানায় গিয়ে ওই ছয়জনকে আসামি করে ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করেন। পরে ছয় আসামির মধ্যে পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ