‘টকশো আয়োজকরা ইসলাম সম্পর্কে ভুল তথ্য দিতে চায়’

মক্কা শরীফের উম্মুল কুরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আব্দুর রহমান জামীল কাসসাস বলেছেন, টকশো আয়োজকরা ইসলাম সম্পর্কে ভুল তথ্য দিতে চায়। বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্রগ্রাম (আইআইইউসির)'র কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে “দাওয়াতী কাজে আধুনিক পদ্ধতির ব্যবহার” এবং “ফিক্বহী মতবিরোধ ও দাওয়াতী ময়দানে এর প্রভাব” শীর্ষক সেমিনার প্রধান আলোচকের বক্তব্য তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান আলোচক সমসাময়িক অনেক মাধ্যমের কথা উল্লেখ করেন যা দাওয়াতী কাজে সুন্দরভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে। তিনি বলেন, আজকাল বিভিন্ন মিডিয়ায় টকশো আয়োজন হয়। সেখানে প্রায়ই দেখা যায়, ইসলামের পক্ষে যাকে আলোচক হিসেবে নেয়া হয় তিনি ইসলাম বিরোধী আলোচকের চেয়ে অনেক দুর্বল। এর মধ্যে দিয়ে টকশোর আয়োজকরা ইসলাম সম্পর্কে ভুল তথ্য অন্যের কাছে দিতে চায়। দাওয়াহ বিভাগের শিক্ষার্থীদের এই বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে হবে যাতে সুন্দর বিতর্কের মাধ্যমে তাদের পরাজিত করা যায়। তিনি দাওয়াতী কাজে বডি ল্যাংগুয়েজের সুন্দর ব্যবহার সম্পর্কেও গুরুত্বারোপ করেন। একই কথা দু’ভাবে বলা যায়। কর্কশ ভাষায় যে কথা বলা যায় সেই একই কথা বিনয়ের সাথে সুন্দর অঙ্গভঙ্গি দিয়ে বলা যায়। দাঈ ইলাল্লাহর বডি ল্যাংগুয়েজের মধ্যে আধ্যাতিকতার ছাপ থাকতে হবে।

অপরদিকে “ফিক্বহী মতবিরোধ ও দাওয়াতী ময়দানে এর প্রভাব” বিষয়ে আলোচনা করতে গিয়ে সৌদি আরবের কুল্লিয়াতুল হারাম ও আল বাহা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. মিশাল বিন হুমাইদ আল লুহাইবী বলেন, ফিকহী মতবিরোধ যেন ইফতেরাকের কারণ না হয়। সালাফের মধ্যে অনেক বিষয়ে ইখতেলাফ ছিল কিন্তু তারা এ নিয়ে দলে দলে বিভক্ত হননি। সে ব্যাপারে ও আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন শরীয়া'হ অনুষদের ডীন ড. মুহাম্মাদ শাফী উদ্দীন মাদানী। বিশ্ববিদ্যালয়ের CENURC'র অধ্যাপক ড. বি. এম মফিজুর রহমান আল আযহারীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন দা'ওয়াহ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ আমিনুল হক।

এসময় সেমিনারে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী প্রমুখ।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ