প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সাথে সদ্ভাবই আমোদের নীতি: পরিকল্পনা মন্ত্রী

  © টিডিসি ফটো

পরিকল্পনা মন্ত্রী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান বলেছেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্রসমূহের সঙ্গে আমরা সদ্ভাব রক্ষা করে চলি। বন্ধুত্বের ভাব রক্ষা করে চলি। তার ফলে শুধু আমাদের দেশে নয়, দেশের চারপাশে আঞ্চলিকভাবে শান্তিশৃংখলা সৃষ্টি হবে।

শনিবার (২৬ অক্টোবর) বেলা ১১টায় আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম (আইআইইউসি) এর ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ এবং গবেষণা ও প্রকাশনা কেন্দ্রের যৌথ আয়োজনে আইআইইউসির ১৩তম ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

প্রধান অতিথি বলেন, রাজনৈতিক সংগ্রাম ও রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে এ দেশের জন্ম হয়েছে। আমরা দেশকে গড়ে তুলতে চাই, সবাই মিলে দেশকে একটা শান্তির মানববাগান বানাতে চাই। অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও সমতার সমাজ গড়ার লক্ষ্যে ঐক্যের বিকল্প নেই।

মন্ত্রী বলেন, সমাজে বৈষম্য রয়েছে, বৈষম্য দূর করার পথও রয়েছে। সেমিনারেও বৈষম্য দূর করার কৌশল আলোচিত হবে। আমাদের প্রয়োজন হলো স্বকীয়তা, স্বাভাবিকতা। মানে সৃষ্টিকর্তার দেওয়া আলো হাওয়া ভোগ করেই আমাদের উন্নয়ন করতে হবে।

তরুণ প্রজন্মের উদ্দেশে তিনি বলেন, যদি ভিন্ন কোনো পথ থাকে, গবেষণা করো, খোঁজ করো, বের করো, এখানে নিজেদের নিয়োগ করো, কোনো বাধা নেই। সেই নিশ্চয়তাও আমাদের সমাজ আমাদের দিচ্ছে। কোনোভাবেই আমরা নিজেদেরকে এমন কোনো পথে পরিচালিত করব না, যার ফলে প্রতিবেশিরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

তিনি আরো বলেন, আমরা কোনো ধনী রাষ্ট্র নই, আমাদের তেমন কোনো সম্পদও নেই। তবু প্রধানমন্ত্রী চান শিক্ষাক্ষেত্রে যাতে আমরা সবচেয়ে বেশি বিনিয়োগ করি। এক্ষেত্রে আমরা প্রচুর ব্যয় করছি, আরো করবো।

আইআইইউসির উপাচার্য অধ্যাপক কে এম গোলাম মহিউদ্দীনের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী। উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ড. আবু রেজা মো. নিজামুদ্দীন নদভী। বক্তব্য রাখেন আইআইইউসির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলী আজাদী, বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমের আলী হোসাইন। কনফারেন্সের অর্গানাইজিং কমিটির চেয়ার আইআইইউসির ট্রেজারার অধ্যাপক ড. আবদুল হামিদ চৌধুরীর স্বাগত বক্তব্যের পর বক্তব্য রাখেন গবেষণা ও প্রকাশনা কেন্দ্রের পরিচালক ড. মোহাম্মদ আক্তারুজ্জামান খান, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ মাসরুরুল মাওলা এবং মেম্বার সেক্রেটারি ড. মো. মাহি উদ্দিন। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আইআইইউসি ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী দ্বীন মোহাম্মদ, বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজের সদস্য মুহাম্মদ নূরুল্লাহ প্রমুখ।

উপাচার্য কে এম গোলাম মহিউদ্দীন বলেন, শীর্ষস্থানীয় পণ্ডিত ও গবেষকদের অংশগ্রহণে এই সম্মেলন প্রয়োজনীয় লার্নিং প্ল্যাটফরম হিসাবে সুফল বয়ে আনবে। সমাজের কল্যাণে একটা প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা কাঠামো প্রণয়নে এটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক এই কনফারেন্সে বাংলাদেশ, ইংল্যান্ড, মালয়েশিয়া, দুবাই, দক্ষিণ কোরিয়াসহ বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক-প্রতিনিধিগণ অংশগ্রহণ করছেন। এদের মধ্যে ৫ জন কি-নোট স্পিকার রয়েছেন। কনফারেন্সে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মালয়েশিয়ার ইউনিভার্সিটি অব মালয়ার এশিয়া-ইউরোপ ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. রাজা আল রাসিয়াহ, ইউনিভার্সিটি সেইন্স ইসলাম মালয়েশিয়ার অধ্যাপক দাতো ড. সাপোরা সিপন, যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব হাল এর বাণিজ্য, আইন ও রাজনীতি অনুষদের অধ্যাপক ড. গুঞ্জন সাকসেনা, ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব মালয়েশিয়ার অর্থনীতি ও ব্যবস্থাপনা বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. হাসানুদ্দিন আবদ আজিজ এবং দক্ষিণ কোরিয়ার ইনবা ইউনিভার্সিটির টেকসই ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ড. জং দ্য কিম। কনফারেন্সে মোট প্রাপ্ত প্রবন্ধের সংখ্যা ১১০টি। তদ্মধ্যে ৬০টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ