মাত্র ৪০ হাজার টাকায় রোবট বানালো তারা

  © টিডিসি ফটো

কুমিল্লার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী মানব রোবট তৈরি করেছে। তারা হলেন কুমিল্লার ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী আশরাফুর রহমান মিনহাজ এবং তৃতীয় বর্ষের ২য় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী মাহমুদা আফরীন। মাত্র ৪০ হাজার টাকা ব্যয়ে রোবটটি তৈরি করেন তারা।

এটি বাংলাদেশের প্রথম ওপেনসোর্স হিউম্যানয়েড রোবট বলে দাবি করেন তারা। রোবটটির নাম দেয়া হয়েছে মিয়া-১। মিনহাজ ও আফরীনের নামের আদ্যাক্ষর নিয়ে এই নাম দেয়া হয়।

টিম লিডার ছিলেন আশরাফুর রহমান মিনহাজ। তাদের মেন্টর ছিলেন ওই বিভাগের প্রভাষক মাসুম বকাউল। রোবটটি তৈরিতে সময় লেগেছে আড়াই মাস। এটি পরিচালনার জন্য স্মার্টফোন ব্যবহার করে কমান্ড দিতে হয় না। রোবটটি ব্যবহারকারীর কথা শুনতে পারে এবং প্রতিউত্তর করতে পারে।

গত মঙ্গলবার কুমিল্লার ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পদুয়ার বাজারের ক্যাম্পাসে রোবটটি উন্মুক্ত করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর। সভাপতিত্ব করেন ভিসি ড. তোফায়েল আহমেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনসিসি ময়নামতি রেজিমেন্টর অধিনায়ক কর্নেল সালাউদ্দিন মুরাদ, নারী নেত্রী দিলনাশি মোহসেন ও রোকেয়ো বেগম শেফালী প্রমুখ।

টিম লিডার মিনহাজ বলেন, রোবটের বুকে ৭ ইঞ্চি টাচ্ স্ক্রিন এলসিডি মনিটর রয়েছে, যার মাধ্যমে একজন ইউজার সহজে রোবটটিকে কমান্ড করে তার কাছ থেকে তথ্য জেনে নিতে পারবে। রোবট মিয়া-১ মুখে কথা বলার পাশাপাশি তার এলসিডিতে সংশ্লিষ্ট ছবিও প্রদর্শন করবে। রোবটটির চোখে অত্যাধুনিক ক্যামেরা সংযুক্ত করা হয়েছে। যার মাধ্যমে এটি দেখতে পারবে। এটি টিচিং এবং রিসিপশনের কাজ করতে পারবে। 

ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক মাসুম বকাউলের অনুপ্রেরণায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. তোফায়েল আহমেদ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক সহযোগিতায় তারা রোবটটি বানাতে পেরেছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবে বসেই তারা রোবট মিয়া-১ তৈরি করেছেন। 

মিনহাজ আরো বলেন, আমরা রোবট মিয়া-১ কে ওপেন সোর্স করে দিয়েছে। অর্থাৎ রোবটটির প্রোগ্রাম, ডিজাইন, পার্টস লিস্ট ওয়েবসাইটে দেয়া আছে। আমরা প্রযুক্তিতে পিছিয়ে আছি। কারণ সবাই নিজের আবিষ্কারকে লুকিয়ে রাখে। কিন্তু আমরা ওপেন করে দিয়েছি। আমাদের দেখে যেন অন্যরা আরো ভালো কিছু করে। বাংলাদেশকে যেন এগিয়ে নিয়ে যায়। ভবিষ্যতে আমরা আরো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মিয়া-২ রোবট তৈরি করবো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. তোফায়েল আহমেদ বলেন, শিক্ষা ও সংস্কৃতিতে কুমিল্লাকে পথিকৃত বলা হয়। কুমিল্লার ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রযুক্তিতে ভূমিকা রেখে বাংলাদেশকে আরো এগিয়ে নেবে বলে আমার বিশ্বাস।

উল্ল্যেখ্য, চলতি বছর কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের চার শিক্ষার্থী মাত্র ৩৭ হাজার টাকায় দেশের ৪র্থ মানব রোবট সিনা তৈরী করেন। বর্তমানে রোবটটিকে বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর(বার্ড) গ্রন্থাগারে রাখা হয়েছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ