৫ শিক্ষার্থীকে থুতু খাওয়ালেন শিক্ষক

  © সংগৃহীত

বাড়ির কাজ না করায় চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে এক স্কুল শিক্ষক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঁচ শিক্ষার্থীকে থুথু খাইয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে।

গত রোববার উপজেলার ৫নং গুপ্টি পুর্ব ইউনিয়নের শ্রীকালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোশারফ তালুকদার এই ঘটনা ঘটান। পরে বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে ওই শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের পক্ষে জেলা শিক্ষা অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রোববার দুপুরে শ্রীকালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোশারফ তালুকদার চতুর্থ শ্রেণির নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছিলেন। ক্লাসের রুটিন অনুযায়ী বাড়ির কাজ জমা না দেয়ায় শিক্ষার্থী সাবিকুন্নাহার, ফাতেমা আক্তার, মারিয়া আক্তার, শামীম হোসেন ও জনি হোসেনকে শাসনের একপর্যায়ে তাদের গাল চেপে ধরে নিজের থুতু খাইয়ে দেন।

ওই শিক্ষার্থীরা বাড়ি গিয়ে তাদের অভিভাবকদের ঘটনাটি জানালে তারা বিষয়টি প্রধান শিক্ষককে জানান।

প্রধান শিক্ষকের অনুরোধে অভিভাবকরা পর দিন বিদ্যালয়ে এলেও ওই দিন বিদ্যালয়ে আসেননি শিক্ষক মোশারফ। এতে ক্ষোভের সৃষ্টি হয় অভিভাবকদের মধ্যে। তবে প্রধান শিক্ষক আ. হান্নান শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কাছে ওই শিক্ষকের পক্ষ হয়ে ক্ষমা চেয়েছেন বলে জানা যায়।

পরে বিক্ষুব্ধ অভিভাবকদের পক্ষে মো. মহিউদ্দিন বুধবার বিকালে চাঁদপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর সহকারী শিক্ষক মোশারফের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেন।

কয়েকজন অভিভাবক জানান, ৪র্থ শ্রেণীর ওই ৫ শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও অভিযুক্ত শিক্ষকের সামনেই ঘটনা বিস্তারিত বলেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষক মোশারফ তালুকদার বলেন, বিষয়টি এমনটা রূপ নিবে ভাবতে পারিনি। তবে একটি পক্ষ আমার বিপক্ষে কাজ করছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আ. হান্নান বলেন, ঘটনার দিন আমি বিদ্যালয়ের কাজে উপজেলায় ছিলাম। পরে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছে এ ঘটনার নিন্দা জানিয়ে শিক্ষকের পক্ষ হয়ে ক্ষমা চেয়েছি।

এ বিষয়ে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শাহাবউদ্দিন জানান, গত কিছুদিন পূর্বে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অন্য একটি ঘটনায় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ