স্টুডেন্টস ইউনিয়নের দুই নেতাকে মুক্তি দিতে মিয়ানমারকে আহবান

  © সংগৃহীত

রাখাইন ও চিন রাজ্যে ইন্টারনেট নিষেধাজ্ঞার প্রতিবাদ করে কারাবন্দী রাখাইন স্টুডেন্টস ইউনিয়নের দুই শিক্ষার্থী মিয়াত হেইন টুন এবং কিয়া লিনকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠন ফর্টিফাই রাইটস।

কর্তৃপক্ষকে অবহিত না করে প্রতিবাদে অংশ নেয়ায় কামায়ুত টাউনশিপ আদালত ২৩ জুলাই তাদের এক মাসের কারাদণ্ডে দণ্ডিত করে।

ফর্টিফাই রাইটসের প্রধান নির্বাহী ম্যাথু স্মিথ বলেন, মিয়ানমারে মত প্রকাশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থার শেষ হওয়া উচিত। সরকারের সমালোচক এবং মানবাধিকার কর্মীদের কারাবন্দী করা অন্যায়ের অনেক বিস্তৃতিরই একটি অংশ।

মিয়াত হেইন টুন (১৮) এবং কিয়া লিন (২২) বর্তমানে ইয়াঙ্গুন ইনসেইন কারাগারে বন্দী আছেন।

ইয়াঙ্গুনের রাখাইন স্টুডেন্টস ইউনিয়ন, অল বার্মা ফেডারেশন অব স্টুডেন্টস ইউনিয়ন (এবিএফএসইউ) এবং ইয়াঙ্গুন ইউনিভার্সিটির ইকোনমিক্স স্টুডেন্টস ইউনিয়নের সদস্যরা ২৩ ফেব্রুয়ারি ইয়াঙ্গুনের হিলদান জংশনে একটি বিক্ষোভ মিছিল করেন।

বিক্ষোভকারীদের দাবি ছিল, রাখাইন এবং চিন রাজ্যে ইন্টারনেট নিষেধাজ্ঞায় দেরি না করে চালু করা, ১৩ ফেব্রুয়ারি বুথিডাং টাউনশিপের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে হামলার জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া এবং রাখাইন রাজ্যের সংঘর্ষের এলাকায় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে প্রবেশের অনুমতি দেয়া।

কামায়ুত টাউনশিপের চিফ পুলিশ অফিসার থেইন হান ২৩ ফেব্রুয়ারি মিয়াত হেইন টুন ও কিউ লিনসহ নয়জন বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ