চবি ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি চেয়ে আল্টিমেটাম

দীর্ঘ ১৯ মাস পর চলতি বছরের ১৪ জুলাই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগের দুই সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা ঘোষণা করা হলেও গত ৪ মাসে পূর্ণাঙ্গ কমিটি না পেয়ে হতাশ সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।

এদিকে অবিলম্বে শাখা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির দাবি জানিয়ে সংগঠনটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা মানববন্ধন করেছে। মঙ্গলবার বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধন থেকে দেওয়া হয়েছে ১ সপ্তাহের আল্টিমেটাম।

মানববন্ধনে সংগঠনটির নেতারা ১ সপ্তাহের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা না হলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন। তারা বলেন, আগে জৈষ্ঠদের পদ দেয়া হোক। তারপর একে একে বাকি কার্যক্রম পরিচালনা করুক। এতে করে আমরা জুনিয়রদের সহযোগিতা করতে পারবো। কারন পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকলেও দীর্ঘদিন যাবৎ আমরাই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের হয়ে কাজ করে আসছি।

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, তারা দাবিটি আমাদেরকে জানায়নি। অথচ প্রথমেই তাদের উচিৎ ছিলো আমাদের নিকট আসা। এমনকি বগির রাজনীতি থেকে তারা এখনো বেরিয়ে আসতে পারেনি। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নির্দেশ অমান্য করে বগির রাজনীতির সাথে যারা জড়িত তাদেরকে কমিটিতে স্থান দেওয়া হবে না।

তাছাড়া আমরা শুরু থেকে বলে এসেছি হলের এলটমেন্টের সমস্যাটা সমাধান করেই হল কমিটি দেওয়া হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে ফ্যাকাল্টি এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হবে।
কিন্তু তখন প্রশাসনিক গুরুত্বপূর্ণ কিছু পদ খালি থাকায় হলের সমস্যাটি সমাধান করা যায়নি। ইতোমধ্যো নতুন উপাচার্য এবং প্রক্টর দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। আমরা তাদের কাছে অতিদ্রুত হলের সিট বরাদ্দের দাবি জানাবো। এবং হলের বৈধ শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকেই দায়িত্ব দেওয়া হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে বাকী কার্যক্রম হাতে নেওয়া হবে। তবে যাদের ছাত্রত্ব নেই কিন্তু দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত আছে- তারা কমিটিতে স্থান পাবে কিনা? জানতে চাইলে তিনি বলেন সবকিছু বিবেচনা করেই দায়িত্ব দেওয়া হবে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ