অকালে চলে গেলেন বিউটি বোর্ডিংয়ের তারক সাহা

পুরান ঢাকার বাংলা বাজারে ১ নং শ্রীশদাস লেনে অবস্থিত ঐতিহাসিক বিউটি বোর্ডিং-এর কর্ণধার তারক সাহা আর নেই। আজ বুধবার সকালে রাজধানীর গেন্ডারিয়ার আজগর আলী হাসপাতালে পরলোকগমন করেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৭ বছর।

চিকিৎসকরা জানান হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। বিকেলে রাজধানীর পোস্তগোলা মহাশ্মশান ঘাটে তার শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।

উল্লেখ্য, বিউটি বোর্ডিং বাড়িটি ছিল নিঃসন্তান জমিদার সুধীর চন্দ্র দাসের। ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পূর্বে সেখানে ছিল সোনার বাংলা পত্রিকার অফিস। কবি শামসুর রাহমানের প্রথম কবিতা মুদ্রিত হয়েছিল এ পত্রিকায়। দেশভাগের সময় পত্রিকা অফিসটি কলকাতায় স্থানান্তরিত হয়। এরপর ১৯৪৯ সালে দুই ভাই প্রহ্লাদ চন্দ্র সাহা ও নলিনী মোহন সাহা এই বাড়ি ভাড়া নিয়ে গড়ে তোলেন বিউটি বোর্ডিং।

বাড়িটি ১১ কাঠা জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত। নলিনী মোহনের বড় মেয়ে বিউটির নামেই এর নামকরণ করা হয়। ১৯৭১ সালের ২৮ মার্চ বিউটি বোর্ডিংয়ে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর হাতে নিহত হন প্রহ্লাদ চন্দ্র সাহাসহ ১৭ জন। পরবর্তীতে প্রহ্লাদ চন্দ্রের পরিবার ভারত গমন করে।

বাংলাদেশ স্বাধীনতা লাভের পর ১৯৭২ সালে প্রহ্লাদ চন্দ্রের স্ত্রী শ্রীমতী প্রতিভা সাহা দুই ছেলে সমর সাহা ও তারক সাহাকে নিয়ে বিউটি বোর্ডিং আবার চালু করেন।

 


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ