ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে কী এমন বললেন পগবা!

ইসলামের প্রতি নিজের বিশ্বাস নিয়ে মুখ খুললেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড মিডফিল্ডার পল পগবা। তিনি বলছেন, এ ধর্ম তাকে আত্মিক শান্তি এনে দিয়েছে এবং ভালো মানুষ বানিয়েছে। একসময় ধর্মকর্ম থেকে দূরে ছিলেন পগবা। মা ধার্মিক মুসলমান হলেও তিন সন্তানকে যথার্থ মুসলিম হিসেবে গড়ে তুলতে পারেননি।

কার্যত বন্ধু-বান্ধবের সাহচার্যে ধর্মীয় বিষয়ে আগ্রহ তৈরি হয় ২৬ বছর বয়সী ফুটবলারের। একপর্যায়ে ক্যারিয়ারে কঠিন সময় এলে ইসলাম ধর্ম পালনে মনোনিবেশ করেন তিনি। সেই থেকে নিয়মিত নামাজ আদায় করছেন ফরাসি ফুটবলার। গেল মাসে মক্কায় ওমরাহ পালন করেছেন তিনি।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য টাইমস’ লাইফ টাইমসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে খোদ পগবা নিজেই এসব কথা জানিয়েছেন। তার সরল স্বীকারোক্তি, ইসলাম তাকে বদলে দিয়েছে, জীবনের মানে বুঝতে শিখিয়েছে। এটি ওকে মানসিক প্রশান্তি এনে দিয়েছে। তিনি মনে করেন, এর কারণেই আত্মিক শান্তি পেয়েছেন।

ইসলাম নিয়ে আগ্রহ বাড়াতে বন্ধুদের ভূমিকার কথা উল্লেখ্য করে পগবা বলেন, তার অনেক মুসলিম বন্ধু আছে। তাদের কারণেই এ পর্যন্ত এসেছেন। তারা সবসময় এ ধর্ম নিয়ে কথা বলেন। অনেক চিন্তাভাবনার পর তিনি এটা নিয়ে গবেষণার সিদ্ধান্ত নেন। পরে যা হওয়ার তাই হয়েছে।

বিশ্বে ইসলাম নিয়ে একটা ভ্রান্ত ধারণা তৈরি হচ্ছে। কিছু কুচক্রী মানুষ সেটি করছে। বিভিন্ন গণমাধ্যম এ নিয়ে ভুল তথ্য উপস্থাপন করছে মন্তব্য করে এ ফুটবলার বলেন, ইসলাম খুবই সুন্দর ও শান্তির ধর্ম। দিনে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায়ে পাপের জন্য স্রষ্টার কাছে ক্ষমা চাওয়া যায়।

সবকিছুর জন্য তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো যায়। এ দুনিয়া পরীক্ষাগার। ভেতরে ইমানদারিত্ব থাকলে আপনি মৃত্যুর পরের জীবনের কথা ভাববেন, যা আপনাকে শ্রেয় পথে আনবে। ইসলামের শিক্ষা দেয়, সব মানুষকে গভীরভাবে সম্মান করতে হবে। তাতে তিনি মুসলিম হোন বা অন্য ধর্মের। পগবার মতে, একজন মুসলামানের উচিত জাতি, ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই সমান সম্মান প্রদর্শন করা।

তথ্যসূত্র: ডেইলি সাবাহ


মন্তব্য