চীনা প্রেসিডেন্টের মসজিদে গিয়ে দোয়া চাওয়ার খবরটি ভুয়া

  © সংগৃহীত

মিথ্যা নিউজ প্রচারে কখনো ইসলামের প্রচার হয় না। কিছু নিউজ পোর্টাল সামন্য লাইক আর কমেন্টের আশায় যাছাই না করে ইসলামের মহত্ব প্রচারের নামে মিথ্যা ছড়াচ্ছে, যা ইসলাম কখনো সমর্থন করে না। এটি একটি অত্যন্ত গর্হিত কাজ।

১. ২০১৬ সালে চীনের প্রেসিডেন্ট সিজিংপিং উত্তরাঞ্চলী নিংসিয়া প্রদেশের একটি মসজিদ পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। চাইনিজ নিউজ এজেন্সি CCTV তাদের ইউটিউব চ্যানেল আপলোড করে ২১ জুলাই ২০১৬ সালে।  লিংক: (https://youtu.be/lfzeGMg0Sc4)

এদিকে নিউজ প্রচার করা হচ্ছে, করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে চীনের প্রেসিডেন্ট মসজিদে গিয়ে দোয়া চাইলেন। আর পোর্টালগুলো যেই লিংক দিয়েছে তা রিআপলোড ২০২০ ফেব্রুয়ারী ৫ তারিখ।

২. ২০১৫ সালে মালয়শিয়ার প্রধানমন্ত্রী আব্দুল্লহ আহমাদ বাদাওয়ী চীন সফরে গিয়ে বেইজিং এর নানসিয়া প্রো মসজিদে জুম্মার নামাজ আদায় করেছিলেন। যার ভিডিও AP Archive ইউটিউব চ্যানেল আপলোড করে ২১ জুলাই ২০১৫ সালে।  লিংক: (https://youtu.be/moQ6wDEc6ow)

এদিকে নিউজ করা হচ্ছে, করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে চীনের প্রধানমন্ত্রী মসজিদে নামাজ আদায় করলেন।

৩. সম্প্রতি ফেসবুকে চীনের কিছু মসজিদের নামাজের ফুটেজ দেখা যাচ্ছে। তাতে বলা হচ্ছে চীন সরকার ‘Coronavirus’-এ ভয় পেয়ে নামাজের জন্য মসজিদ খুলে দিচ্ছে। আসল খবর হল, ভাইরাসটি যখন থেকে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে তখন থেকে ভাইরাস আক্রান্ত প্রতিরোধে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের পরামর্শে চীন সরকার তাদের সকল ধরনের পর্যটন স্থান ও যে সকল স্থানে বেশি মানুষ ভিড় জমায় সে সকল স্থানে মানুষ সমাগমে নিষধাজ্ঞা জারি করে।

সে সূত্র ধরে বেশি আক্রান্ত শহরের মসজিদের ইমামগন মুসল্লীদেরকে মসজিদে না এসে ঘরে নামাজ পড়তে বলেন। বর্তমানে এই অবস্থাই চলছে। প্রায় সব মসজিদে জামাত বন্ধ আছে।

চীন যেহেতু সমাজতান্ত্রীক দেশ, সে হিসাবে ইসলামের সাথে তাদের আদর্শের যে বিরোধ তা সব সময়ই তাদের কাছে রয়েছে।

সবশেষ অনুরোধ, ইসলামের মহত্ব ও বড়ত্ব প্রচার করতে গিয়ে যাচাই-বাছাই না করে কেউ মিথ্যার আশ্রয় নিবেন না।

লেখক: শিক্ষার্থী, উঝহৌ ইউনিভার্সিটি, চীন

(Wuzhou university, Guangxi, China)

২০১৬ সালে চীনা প্রেসিডেন্টের মসজিদে যাওয়ার সেই ভিডিও...


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ