‘ট্রাফিক আইন’ জানাতে মাঠে নামছে শিক্ষার্থীরা

‘সড়ক নিরাপত্তা’ বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে গুচ্ছ কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামছে শিক্ষার্থীরা। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ সূচিতে বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা সম্পৃক্ত হচ্ছেন। মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিক্ষার্থীরা মূলত ট্রাফিক সিগনাল, যানবাহন চালনা, রাস্তা পারাপারসহ বিভিন্ন বিষয়ে ক্যাম্পেইন চালাবে। তবে এর আগে তাদেরকে প্রশিক্ষণ ও ক্লাসে পাঠদানের মাধ্যমে যথাযথভাবে উপযুক্ত করা হবে; যে প্রক্রিয়া আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে।

সূত্র জানায়, প্রাথমিকভাবে শিক্ষার্থীদের জন্য ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে মোট ২৪টি কাজ নির্ধারণ করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, জনগণের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সড়ক দুর্ঘটনা হ্রাস ও সড়কে শৃঙ্খলা তৈরিতে বর্তমান সরকার দৃঢ প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। সড়ক নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য প্রাথমিক থেকে সব স্তরের ছাত্রছাত্রীর কাছে লিফলেট বিতরণ এবং শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে তা অভিভাবকদের কাছে তা পৌঁছে দিতে হবে।

এতে আরো বলা হয়, সড়ক আইন সম্পর্কে শ্রেণীকক্ষে শিক্ষকের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় ধারণা/নির্দেশনা নেবে শিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি ক্লাব-স্কাউটস শিক্ষার্থীর মাধ্যমেও অভিভাবকদের মাঝে সচেতনতা তৈরিতে লিফলেট বা প্রচারপত্র তৈরি এবং নিজ নিজ বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে সেগুলো বিতরণ করতে বলা হয়েছে।

মূলত মন্ত্রণালয়ের এ নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যেই গতকাল (মঙ্গলবার) ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন অর রশিদের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা জারি করা হয়। যাতে বলা হয়, শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে ট্রাফিক সিগনাল, ক্লাসে পাঠদানের পাশাপাশি সচেতনতা বাড়ানোসহ ১৩টি কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে হবে। শুধু তাই নয়, লিফলেট বা প্রচারপত্র তৈরি করন সেগুলো বিতরণ, উপজেলা শিক্ষা অফিসার বা সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে নিয়মিত সমাবেশ আয়োজন করা, শিক্ষার্থীদের মধ্যে নিরাপদ সড়ক বিষয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতা ও রচনা প্রতিযোগিতা আয়োজন করতেও নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অবশ্যই বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

সহপাঠী হত্যার বিচার ও সড়কে নিরাপত্তা চেয়ে সম্প্রতি রাজধানীসহ সারাদেশে মাঠে নেমেছিল কোমলমতি শিক্ষার্থীরা

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক হারুন অর রশিদ বলেন, ইতোমধ্যেই মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের প্রতিষ্ঠান প্রধানদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে; যা আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে অনুসরণ করা শুরু হবে। বিষয়টি শিক্ষা বোর্ডের পক্ষ থেকে মনিটরিং করা হবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপসচিব গোপাল চন্দ্র ঘোষ বলেন, শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে অভিভাবক ও সাধারণ মানুষকে ট্রাফিক আইন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে আমরা এমন উদ্যোগ হাতে নিয়েছি। নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করতে এমন কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এতে করে শিক্ষার্থীরাও সচেতন হবে, পাশাপাশি অভিভাবকরাও সড়ক আইন সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠবেন।

নিরাপদ সড়কের দাবি আন্দোলন করেছে সরকার সমর্থক সংগঠনের নেতাকর্মীরাও

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে সড়ক আইন সর্ম্পকে ধারণা তৈরির উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে ২৪টি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। শিক্ষকদের সহায়তায় শিক্ষার্থীরা তাদের অভিভাবক ও জনসাধারণকে এ বিষয়ে লিফলেট ও ট্রাফিক আইন সর্ম্পকে ধারণা দিবে। মাঠপর্যায়ে অভিভাবক-শিক্ষার্থীসহ সবার মধ্যে সড়ক আইন সর্ম্পকে সচেতনতা বাড়বে। পরবর্তীতে পাঠপুস্তকে সড়ক আইন সর্ম্পকে বিভিন্ন পাঠ্যক্রম অন্তর্ভুক্ত করা হবে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ