শ্বশুরবাড়ি যাওয়া হল না কিশোরী নববধূর, পথে আটকে দিলেন ইউএনও

শ্বশুরবাড়ি যাওয়া হল না কিশোরী নববধূর, পথে আটকে দিলেন ইউএনও
  © প্রতীকী ছবি

বাল্যবিয়ের পর কিশোরী নববধূকে (১৫) শ্বশুরবাড়ি নিয়ে যাওয়ার পথে আটকে দিলেন লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রবিউল হাসান। রোববার সন্ধ্যায় কালীগঞ্জ উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

এসময় ইউএনও ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে বরকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা এবং কাজীকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

জানা গেছে, কনে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। বর আশরাফুল ইসলাম (২১) একই উপজেলার স্থানীয় একটি কওমি মাদ্রাসার ছাত্র। আবু হানিফ তাদের বিয়ের নিবন্ধন করেন ।

এ বিষয়ে ইউএনও রবিউল হাসান বলেন, আমরা গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে বাল্যবিয়ের তথ্য পাই। বিয়ের পর মাইক্রোবাসে করে রওনা হলে বর ও নববধূকে পথের মধ্যে আটকিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করি। প্রথমে তারা বিয়ের কথা অস্বীকার করেন। পরে কাজীকে ফোন করে ডেকে আনলে বিয়ের কথা স্বীকার করেন।

তিনি আরও জানান, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে কাজী আবু হানিফকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং বর আশরাফুল ইসলামকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছি। লিখিত মুচলেকা নিয়ে কনেকে তাঁর চাচা ও মামার জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত কিশোরীকে শ্বশুরবাড়ি পাঠানো যাবে না বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য

এ বিভাগের আরো সংবাদ