মানুষ যখন আসল খবরটি পায় না, তখনই গুজব তৈরি হয়

মানুষ যখন আসল খবরটি পায় না, তখনই গুজব তৈরি হয়
অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম  © ফাইল ফটো

মানুষ যখন আসল খবরটি পায় না, তখনই গুজব তৈরি হয় বলে মনে করেন অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, যে সমস্ত খবর মানুষ জানতে চায়, সেই বিষয়ে তারা খবর পায় না। রাষ্ট্রীয়, রাজনৈতিক, সামাজিক অনাচারের খবর মানুষ জানতে চায়। কিন্তু সেগুলো পায় না। তখন গুজব ছড়ালে মানুষ খুশি হয়। তখন মনে করে একটা কিছু হচ্ছে। তখন মানুষ অন্যায্য আনন্দ পায়।

আজ শুক্রবার ডয়চে ভেলে বাংলাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে অধ্যাপক নজরুল বলেন, ভুল তথ্য মানুষ দুই কারণে দেয়। একটা ইচ্ছে করে দেয়। অর্থাৎ, বানিয়ে দেয় রংচং মিশিয়ে। আরেকটা কারণ হলো, যে দিচ্ছে সে হয়তো নিজে তৈরি করেনি, শুনেছে। কিন্তু ওইটা তার পছন্দ হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সামালোনা করে তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তো যা ইচ্ছে তাই করা যাচ্ছে। কিন্তু এটা যারা নিয়ন্ত্রণ করে, তাদের একটা মনিটরিং থাকা দরকার। যেটা মিথ্যা সেটা যেন তারা দেখে। যারা এটার দায়িত্বে আছে বা যারা এটা চালাচ্ছেন, তাদের উপরই দায়িত্বটা বর্তায়।

তিনি বলেন, সরকারের ভূমিকাও থাকবে। সরকার ওই কোম্পানিকে বলবে। গভমেন্ট তো কোনো অলৌকিক বিষয় না, গভমেন্টও ব্যক্তি। যেসব প্রতিষ্ঠান এগুলো নিয়ন্ত্রণ করে, তাদেরই এটা দেখা উচিত। সরাসরি সরকারের হস্তক্ষেপটা আমার পছন্দ না। তখন এটার অপব্যবহার হতে পারে।

গুজব প্রতিরোধের উপায় সম্পর্কে তিনি বলেন, যে মাধ্যম এটা প্রচার করছে আমি সেই মাধ্যমের উপরই দায়িত্ব দিতে চাই। তথ্য প্রবাহকে অবাধ করা দরকার। সত্যি তথ্য যাতে প্রচার পায়, সেই স্বাধীনতা দেওয়া দরকার। মত প্রকাশের স্বাধীনতা খুবই জরুরি। যে গুজবগুলো ছড়ানো হয় তার মধ্যে মতও থাকে। এটা যে একটা নিরপেক্ষ জিনিস, তা নয়। মত প্রকাশের স্বাধীনতাটা খুবই জরুরি।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ