চলনবিলে ১০-২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে খাসির চামড়া!

  © ফাইল ফটো

এবারের কোরবানির ঈদে চলনবিলের চামড়ার বাজারে নেমেছে ব্যাপক ধস। বিগত কয়েক বছর ধরে চামড়া নিয়ে এমন বিপর্যয় তারা আগে দেখে নি। এদিকে দেশে মহামারি করোনার জন্য চামড়ার দাম কমে যাওয়ায় সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে এতিম খানা, মাদ্রাসা ও হত দরিদ্র মানুষেরা।

এর আগে পশু কোরবানির পর পরই সিরাজগঞ্জ ও নাটোরের চামড়ার আড়ৎ ব্যবসায়ীরা প্রত্যন্ত চলনবিলের ৯টি উপজেলার গ্রামে গ্রামে লোক নিয়োগ করতেন চামড়া কেনার জন্য। সেই সঙ্গে মৌসুমী ব্যবসায়ীরাও প্রতিযোগিতা করে চামড়া কিনতেন। কিন্তু এবারের এমন পরিস্থিতিতে সবটাই বিপরীত।

জানা গেছে, সিরাজগঞ্জের তাড়াশ, উল্লাপাড়া, রায়গঞ্জ, শাহজাদপুর পাবনার ভাঙ্গুড়া, চাটমোহর নাটোরের গুরুদাসপুর, সিংড়া, ও নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ী যারা এসেছিলেন তারা সকাল থেকে পানির দরে চামড়া কিনতে শুরু করেছেন । কিন্ত তাও চামড়া ক্রেতাদের সংখ্যা তুলনায়মূলক অনেক কম ।

স্থানীয়রা জানান, সব মিলিয়ে এবারের কোরবানির ঈদে ষাড়ের চামড়ার বাজারে নেমেছে ব্যাপক ধস। ষাড়ের চামড়া তারা বিক্রি করেছেন মাত্র ২৫০-৫০০ টাকায় আবার কেউ ২০০ টাকায়ও। আর খাসির চামড়া বিক্রি হচ্ছে মাত্র ১০-২০ টাকায়।

অন্যদিকে সলংগা বাজারের মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ী কোরবান আলী জানালেন, তিনি খুচরা যে দামে চামড়া কিনেছেন তার চেয়েও কম দাম বলছেন আড়তদাররা।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ