ঘুচে গেল রক্ষণশীলতা, পাকিস্তানে প্রথম নারী লে. জেনারেল নিগার

নিগার জোহর

লিঙ্গ বৈষম্যের সংকীর্ণ মানসিকতা ঘুচিয়ে দিলো ঘরে-বাইরে চাপের মুখে থাকা ইমরান খানের সরকার। ঘুচে গেল রক্ষণশীলতার অপবাদ। মঙ্গলবার পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে রচিত হলো নয়া ইতিহাস। দেশের সেনাবাহিনীতে প্রথম কোনো মহিলা অফিসার লেফটেন্যান্ট জেনারেল পদমর্যাদায় উন্নীত হলেন। নিজের যোগ্যতায় মেজর জেনারেল পদ থেকে লেফটেন্যান্ট জেনারেলের পদে উঠে এলেন নিগার জোহর।

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ অধিদফতরের (আইএসপিআর) ডিজি মেজর জেনারেল বাবর ইফতিখার টুইট করে নিগার জোহরের ইতিহাস গড়ার কথা জানিয়েছেন। লেফটেন্যান্ট জেনারেল হিসেবে নিগার জোহর পাকিস্তান সামরিক বাহিনীর মেডিক্যাল কোরের প্রধান হিসেবে দায়িত্বভার সামলাবেন। এই প্রথম কোনো মহিলা পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর মেডিকেল কোরের প্রধান হলেন। পাক-আফগান সীমান্তের খাইবার-পাখতুনখোয়া প্রদেশের সোয়াবির বাসিন্দা নিগার বর্তমানে রাওয়ালপিন্ডিতে সামরিক হাসপাতালে কমান্ড্যান্টের দায়িত্বে রয়েছেন।


পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রথম মহিলা লেফটেন্যান্ট জেনারেল নিগারের জন্ম সেনা পরিবারেই। বাবা কর্নেল কাদির ছিলেন পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআইয়ের অফিসার। কাকা মেজর মোহাম্মদ আমিরও পাক সেনা অফিসার ছিলেন এবং দীর্ঘদিন আইএসআইতে কাটিয়েছেন। আজ থেকে ৩০ বছর আগে সড়ক দুর্ঘটনায় তার বাবা-মা দু’জনেই মারা যান। রাওয়ালপিন্ডির প্রেজেন্টেশন কনভেন্ট গার্লস স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। ১৯৮৫ সালে আর্মি মেডিক্যাল কলেজ থেকে ডাক্তারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে চিকি‍ৎসক হিসেবে পাক সেনাবাহিনীতে যোগ দেন নিগার। ২০১৭ সালে পাকিস্তানের ইতিহাসে তৃতীয় নারী হিসেবে মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি পেয়েছিলেন।

দেশের ইতিহাসে প্রথম মহিলা লেফটেন্যান্ট জেনারেল হওয়ার পরেই শুভেচ্ছার বন্যায় ভেসে যাচ্ছেন নিগার জোহর। রাজনৈতিক নেতা থেকে শুরু করে আমজনতা- সবাই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইতিহাস গড়ে ফেলা প্রমীলা সেনা অফিসারকে। প্রধান বিরোধী দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ (নওয়াজ) সুপ্রিমো শেহবাজ শরিফ টুইট করেছেন, ‘দেশের মেয়েদের কাছে আদর্শ হয়ে উঠলেন নিগার জোহর। দেশের সব নারী ও মেয়েদের কাছে আজ এই বার্তা স্পষ্ট হলো, ইচ্ছাশক্তি থাকলে সবই সম্ভব।’ সেনেটর শেরি রহমানও প্রথম মহিলা লেফটেন্যান্ট জেনারেলকে শুভেচ্ছায় ভরিয়ে দিয়েছেন।
সূত্র : এসএএম


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ