আয়-রোজগারের পথ বন্ধ রাখা সম্ভব নয়: প্রধানমন্ত্রী

  © ফাইল ফটো

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচ) পূর্বাভাস অনুযায়ী, করোনাভাইরাস মহামারি সহসা দূর হচ্ছে না। কিন্তু জীবন থেমে থাকবে না। যতদিন এর প্রতিষেধক আবিষ্কার না হচ্ছে, ততদিন করোনাকে সঙ্গী করেই আমাদের বাঁচতে হবে। জীবন-জীবিকার স্বার্থে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আজ রোববার (২৩ মে) পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি। এসময় দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঈদুল ফিতর মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব হলেও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশে সব ধর্ম এবং বর্ণের মানুষ এ উৎসবে সমানভাবে শামিল হন। ঈদের আনন্দ সবাই ভাগাভাগি করে উপভোগ করেন।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনার কারণে লকডাউন বিশ্বের প্রায় সকল দেশই শিথিল করতে বাধ্য হয়েছে। কারণ অনির্দিষ্টকালের জন্য আয়-রোজগারের পথ বন্ধ রাখা সম্ভব নয়। বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশের নয়ই। তিনি বলেন, দোকান-পাট ও ব্যবসা বন্ধ থাকায় মালিকদের আয় বন্ধ হয়েছে, কর্মচারীরাও বিপাকে পড়েছেন। ফলে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে দেশবাসীর সঙ্গে পবিত্র ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার পাশাপাশি দেশবাসীর কল্যাণ কামনা করেন তিনি। এছাড়া করোনায় মৃতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে। আপনি সুরক্ষিত থাকলে পরিবার সুরক্ষিত থাকবে। এতে প্রতিবেশী সুরক্ষিত থাকবে এবং দেশ সুরক্ষিত থাকবে বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ