অসুস্থ নারী ৭ দিন পড়েছিলেন রেলস্টেশনে, ছোঁয়নি কেউ

  © সংগৃহীত

পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশন থেকে জ্বর ও সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত মনোয়ারা বেগম (৪২) নামে এক নারী গত সাতদিন ধরে রলে স্টেশনে পড়েছিলেন। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন- এমন ভয়ে ওই নারীর পাশে যাননি কেউ। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৩১ মার্চ) সকালে মনোয়ারা বেগমের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

ওই নারীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, ওই নারীর স্বামীর বাড়ি দিনাজপুর জেলার বালুবাড়ি এলাকায়। বাবার বাড়ি ঠাকুরগাঁও জেলার রুহিয়া থানার আখানগর এলাকায়। তার বাবা মৃত শামসুল হক। ওই নারী জানান, তিনি পারিবারিক কলহের জেরে গত ২৪ মার্চ ট্রেনে চেপে পঞ্চগড়ে আসেন। সাধারণ ছুটিতে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় তিনি আটকা পড়েন। গত এক সপ্তাহ ধরে তিনি রেল স্টেশন ও তার আশেপাশেই ছিলেন। এর মধ্যে তিনি জ্বর, সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত হলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ভয়ে স্থানীয় কেউ তার কাছে যায়নি। রেলস্টেশনেই খেয়ে না খেয়ে তিনি দিন কাটান।

পরে পঞ্চগরের পুলিশ সুপারের বিশেষ তত্ত্বাবধানে রাতেই ওই নারীকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ সময় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি নিজের নাম ও পরিচয় দেন। তবে তিনি কেন এসেছেন এবং কোথায় যাবেন তা বলতে পারেননি।

সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু আককাছ আহমেদ বলেন, খবর পাওয়ার পর পুলিশ সুপারের নির্দেশে আমরা ওই নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। তাকে উদ্ধার এবং হাসপাতালে ভর্তি করতে আমাদের দুইটি টিম কাজ করেছে।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ