চীনে আটকে পড়া ৫০০ বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর দেশে ফেরার আকুতি

  © ইন্টারনেট

করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় চীনের উহান শহরে আটকা পড়া প্রায় ৫০০ বাংলাদেশি দেশে ফিরতে চান। এ জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর করা আবেদনের জন্য বেইজিংয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগ সম্ভব হচ্ছে না বলে তারা অভিযোগ করেছেন। দ্রুত তাদের উদ্ধারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছে শিক্ষার্থীরা।

উহানের হুবাই ইউনিভার্সিটির অ্যাগ্রিকালচার ইঞ্জিনিয়ারিং-এর শিক্ষার্থী আসিফ আহমেদ সৌরভ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনের বরাবর ওই আবেদন করেছেন। তিনি অভিযোগ করেছেন, তারা ঘরের বাইরে যেতে পারছেন না এক সপ্তাহে ধরে। দোকান-পাট বন্ধ থাকায় খাওয়া-দাওয়ায় বেশ কষ্ট হচ্ছে।

এ অবস্থা চলতে থাকলে না খেয়ে থাকতে হবে। শিক্ষার্থী, গবেষকসহ উহানে ৫০০ বাংলাদেশি রয়েছেন উল্লেখ করে সৌরভ লিখেন, উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তারা জীবন নিয়ে শংকিত।

সবার প্রতি প্রার্থনার অনুরোধ জানিয়ে ওই শিক্ষার্থী লিখেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা বাংলাদেশ দূতাবাসের কেউ তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। অবশ্য গত রাতে দূতাবাসে হটলাইন চালুসহ চালু এবং আতংকিতদের নির্ভয় দেয়া হচ্ছে বলে দাবি করা হয়েছে।

উহানের শিক্ষার্থী তার আবেদনে লেখেন, স্থানীয় কর্তৃপক্ষ তাদের কোন সমাধান দিতে পারছে না। ফলে তাদের বাংলাদেশ সরকারের বড় সমর্থন- সহায়তা দরকার। আবেদনে আশা করা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এব্যাপারে জরুরি প্রদক্ষেপ নেবেন।

অবশ্য চীনে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে বেইজিংয়ে বাংলাদেশ অ্যাম্বাসিতে হটলাইন খোলা হয়েছে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এমপি। তার ভেরিফাইড ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে প্রতিমন্ত্রী লিখেন, বেইজিং এ আমাদের অ্যাম্বাসিতে হটলাইন খোলা হয়েছে (৮৬)-১৭৮০১১১৬০০৫। আমাদের কর্মকর্তা খায়রুল বাসার এবং আসিফ বাংলাদেশিদের করা ২৪৫ সদস্যের গ্রুপে অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন।

বিশেষ করে উহান শহরে সরকার কাউকেই বাসা থেকে বের হতে দিচ্ছে না, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে। বিচলিত না হয়ে সরকারি নির্দেশ মেনে চলার জন্য সবাইকে বলা হয়েছে।

এদিকে বিভিন্ন ডরমেটরি ও আবাসনে অবস্থানকারী বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছেন। শহর থেকে বহির্গামী সব বাস- ট্রেন এবং বিমান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এ অবস্থায় বাংলাদেশি প্রায় ৫০০ শিক্ষার্থীর জন্য সাহায্যের আবেদন জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দেন রকিবুল তূর্য্য নামের এক শিক্ষার্থী।

তিনি লিখেন, ‘সম্প্রতি চায়নাতে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শহর উহানে আমি বাস করছি। এখানে আমরা প্রায় ৫০০ জনেরও অধিক বাংলাদেশী উহানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যাচেলর, মাস্টার্স ও পিএইচজডিও প্রোগ্রামে অধ্যায়নরত। উহান থেকে বহির্গামী সব বাস-ট্রেন এবং বিমান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত অন্তত ২৫ জন মারা গেছে এবং ৬০০-এরও বেশি মানুষ এতে আক্রান্ত হয়েছে। আমরা চাইলেও এখন নিজ দেশে ফিরে যেতে পারছি না। বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে আমাদের খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে এমন নিউজ বাংলাদেশের মিডিয়াতে প্রচার করা হলেও এ খবর ভিত্তিহীন।

আমাদের এখন পর্যন্ত কোন প্রকার কোনো খোঁজ নেয়া হয়নি। আমরা সবাই এক কঠিন মুহূর্ত পার করছি। আল্লাহ তায়ালা যেন আমাদের সবাইকে এ বিপদ থেকে রক্ষা করেন।’

উল্লেখ্য, এক কোটি ১০ লাখ মানুষের উহান শহর কার্যত অচল। সব যাত্রীবাহী ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে বিমানবন্দরে। শহরের সব প্রধান সড়কের চেকপয়েন্ট বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। উহান শহরের কাছে আরো কমপক্ষে ১০টি শহরে একই রকম অচলাবস্থা আরোপ করেছে কর্তৃপক্ষ।


মন্তব্য

সর্বশেষ সংবাদ